কালিগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়নে উপ-নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিল চেয়ারম্যান পদে ৫, সংরক্ষিত ও সাধারণ সদস্য পদে প্রার্থী ১০ জন


প্রকাশিত : জুলাই ১, ২০১৯ ||

নিয়াজ কওছার তুহিন: আগামী ২৫ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য উপ-নির্বাচনে কালিগঞ্জের কুশুলিয়া ও মৌতলা ইউপি’র চেয়ারম্যান পদে, কৃষ্ণনগর ইউপি’র ৬নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদে, বিষ্ণুপুর ইউপি’র ৪, ৫ ও ৬ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মহিলা পদে, তারালী ইউপি’র ১, ২ ও ৩ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মহিলা পদে মোট ১৫ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।
রবিবার (৩০ জুন) মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষদিনে উপজেলা নির্বাচন অফিসার জমিরুল হায়দারের নিকট চেয়ারম্যান পদে ৫ জনসহ সংরক্ষিত ও সাধারণ পদে ১০ জন প্রার্থী মনোয়নপত্র দাখিল করেন।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, কুশুলিয়া ইউপি’র উপ-নির্বাচনে কালিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. শেখ মোজাহার হোসেন কান্টু বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে। এই ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান শেখ এবাদুল ইসলাম।
মৌতলা ইউপি থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী শেখ মাহবুবুর রহমান সুমন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন কাজী রফিকুল ইসলাম বাটুল ও শেখ জাহাঙ্গীর আলম।
এছাড়া কৃষ্ণনগর ইউপি’র ৬ নং ওয়ার্ডে সদস্য পদে রফিকুল ইসলাম, রাম প্রসাদ হালদার, নুর হোসেন, কবিরুল ইসলাম, তপন রায় মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বিষ্ণুপুর ইউপি’র ৪, ৫ ও ৬ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে সুফিয়া খাতুন ও পূর্ণিমা রাণী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারালী ইউপি’র ১, ২ ও ৩ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে জেবুন্নাহার, শাহানারা খাতুন ও লিপিয়া খাতুন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন বলে জানা গেছে।
প্রসঙ্গত, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ৩০ জুন ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। ২ জুলাই বাছাই এবং ৯ জুলাই পর্যন্ত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২৫ জুলাই। বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে কুশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন শেখ মেহেদী হাসান সুমন এবং মৌতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন সাঈদ মেহেদী। এছাড়াও বিভিন্ন কারণে তারালী, বিষ্ণুপুর ও কৃষ্ণনগর ইউপি’র সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদ শূণ্য হয়।