আতঙ্কিত না হয়ে খুলনাবাসীকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ


প্রকাশিত : আগস্ট ২, ২০১৯ ||

ডেঙ্গু প্রতিরোধে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সচেতনতামূলক পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, লিফলেট বিতরণ ও ফকাগ মেশিন দিয়ে ধোঁয়া প্রয়োগ কর্মসূচী পালন করেছে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল ২ আগস্ট শুক্রবার বেলা ১১ টায় নগরীর জাতিসংঘ শিশু পার্কে এ কর্মসূচী পালিত হয়। খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এর সভাপতিত্বে কর্মসূচী তে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন। অনুষ্টান পরিচালনা করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, ১৪ দলের সমন্বয়ক ও সাবেক সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজান।
সভাপতিত্বে বক্তব্য মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন “বর্তমান সরকারের দ্রুত পদক্ষেপের কারনে ইতিমধ্যে ডেঙ্গু সমস্যা নিযন্ত্রণে এসেছে। তিনি আরও বলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশন ডেঙ্গু প্রতিরোধে ইতিমধ্যে বিভিন্ন কর্মকান্ড গ্রহন করেছে। নগরবাসীর প্রতি তিনি আহবান জানিয়ে বলেন আতংকিত হওয়ার কিছু নেই এবং আতঙ্কিত না হয়ে সিটি কর্পোরেশন পাশাপাশি নিজ নিজ বাড়ির আশপাশের পরিস্কার পরিছন্ন রাখতে হবে। তাহলে ডেঙ্গু সমস্যা থেকে আমরা দ্রুত মুক্তি পাবো।”
প্রধান অতিথির বক্তব্য কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সদস্য এস এম কামাল হোসেন বলেন “ডেঙ্গু সমস্যা সর্ম্পকে সরকারের পাশাপাশি আমাদের সচেতন থাকতে হবে, বাড়ির আশপাশ, ড্রেন নালা পরিস্কার পরিছন্ন রাখতে হবে। তিনি আরও বলেন বর্ষার সময়ে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেশী হয়, সেজন্য আমাদের বেশী বেশী সতর্ক থ্কাতে হবে, তাহলে আমরা ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে পারবো। তিনি গুজব নিয়ে বলেন যারা পদ্মা সেতুর কাজ বন্ধ চায় তারা গুজব ছাড়াচ্ছে, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার যতবার ক্ষমতায় এসছে তত বার বিএনপি জামায়ত গুজব সন্ত্রাস সৃষ্টি করেছে। এমন কি বিরোধী দলে থাকার সময়ও বিভিন্ন গুজব সৃষ্টি করেছে কিন্তু জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রতিবার গুজব ও সন্ত্রাস সাহসিকাতার সাথে মোকাবেলা করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। দেশবাসীকে কোন ধরণের গুজবে কান না দেওয়ার আহবান জানান তিনি।”
এসময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা বিএমএ সালাম, এমডিএ বাবুল রানা, বিশিষ্ট শিল্পপতি গালিব কাপাডিয়া, কামরুজ্জামান জামাল, এড ফরিদ আহমেদ, কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, হাফেজ মোঃ শামিম, মফিদুল ইসলাম টুটুল, অধ্যাপক আশরাফুজ্জামান বাবুল, মানিকুজ্জামান অশোক, অসিত বরণ বিশ্বাস, চৌধুরি রায়হান ফরিদ, খান সাইফুল ইসলাম, কাউন্সিলর ইমাম হাসান চৌধুরি ময়না, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ শাহিন আযাদ, আসাদুজ্জামান রাসেল, ফেরদৌস হোসেন লাবু, আলমগীর সরদার, পার্ক পরিবেশ কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদ মোল্লা, তাজুল ইসলাম, মোঃ হোসেনুজ্জামান, শাহীন আলম, শেখ রেজাউল ইসলাম, তাপস জোয়ার্দ্দার, মাহামুদুল হাসান ইমন, শিকদার রাসেল, মাহামুদুল ইসলাম সুজন, আহানাফ অর্পন, ইসতিয়াক জয়, ইমরান রাজ প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি