শোকের গাঁথায় জেলায় জাতীয় শোক দিবস পালন


প্রকাশিত : আগস্ট ১৬, ২০১৯ ||

এসএম শহীদুল ইসলাম: জেলায় লাখো মানুষের বিন¤্র শ্রদ্ধা, ভালোবাসা ও শোকাবহ পরিবেশে নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত, কালোব্যাজ ধারণ, প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, শোক র‌্যালি, আলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃত্তি, প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন ও দোয়া মাহফিল।
দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন উপলক্ষে সকালে শোক র‌্যালি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করে বঙ্গবন্ধু ও ১৫ আগস্ট শাহাদতবরণকারী তাঁর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। জনপ্রতিনিধি, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, শিক্ষা প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগ, মুক্তিযোদ্ধাসহ সকল জেলা ও উপজেলা অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-শিক্ষকবৃন্দ র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন।
জেলা প্রশাসন, শিল্পকলা একাডেমী ও শিশু একাডেমীসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পৃথকভাবে আয়োজিত রচনা, সঙ্গীত, চিত্রাঙ্কন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
এ দিনে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিশু একাডেমী আলোচনা, কবিতা আবৃত্তি, রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এছাড়া আলোচনা, হামদ, নাত ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। জেলা তথ্য অফিস বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবনের ওপর নির্মিত প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করে।
শোক, শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় জেলাব্যাপী আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা দিনভর নানা কর্মসূচি পালন করেন। জেলা শহরের মোড়ে মোড়ে সম্প্রচার করা হয় বঙ্গবন্ধুর ভাষণ। গরীব-দুস্থদের মাঝে বিলিয়ে দেওয়া হয় খাবার। গ্রামে গ্রামে পাড়ায় পাড়ায় পালিত হয় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস। আলোচনায় তুলে ধরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন, কর্ম ও জীবনাদর্শ। বিদেশে পালিয়ে থাকা খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসির রায় কার্যকর করার দাবি ছিলো জোরালো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন পূরণে দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো প্রত্যয়োদ্দীপ্ত অঙ্গিকার ছিলো প্রত্যেক অনুষ্ঠানে। ডেঙ্গু-মাদক-সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সামাজিক জাগরণ সৃষ্টির আহ্বানে শোকের গাঁথায় স্মরণ করেন জেলাবাসি।