কৈখালীতে রাস্তার পাশের সরকারি গাছ কেটে বিক্রি: স্থানীয় প্রশাসন নিরব


প্রকাশিত : আগস্ট ১৯, ২০১৯ ||

রমজাননগর (শ্যামনগর) প্রতিনিধি: শ্যামনগরে কৈখালীতে দিনে দুপুরে রাস্তার ১৫টির অধিক সরকারি গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। তবে ব্যবস্থা নিতে দেখা মেলেনি স্থানীয় প্রশাসনের। ১৭ আগস্ট বৈশখালী গ্রামের সরকারি ইটের সোলিং রাস্তার পাশ দিয়ে গড়ে উঠা ১৫টির অধিক গাছ কেটে নেয় একটি কু-চক্রী মহল।
এলাকাবাসি সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালে জামায়াত শিবিরের তান্ডব চলাকালে বৈশখালী গ্রামের ইসমাঈল গাজীর পুত্র মফের উদ্দীন, জব্বার শেখের পুত্র হাফিজুর রহমান, ধনা গাজীর পুত্র আনছার আলী, আমির গাজীর পুত্র তেরা গাজী, বেলাত গাজীর পুত্র ফজলু গাজী, মফেজ মিস্ত্রীর পুত্র সমশের মিস্ত্রী, এফাজতুল্যহ গাজীর পুত্র রাজ্জাক গাজী, কেরামত গাজীর পুত্র কান্টু গাজী বহু গাছ কেটে আত্মসাৎ করেছিলো।
এদিকে শ্যামনগর উপজেলা বনবিভাগের কৈখালী ইউনিয়ন বেলদার আব্দুল আজিজ জানান, গাছগুলো কাটার সময়ে নিষেধ করেছিলাম। কিন্তু কেউ শোনেনি। রাস্তার পাশের সরকারি বড় বড় গাছগুলো কেটে বিক্রি করে দিয়েছে আবার কেউ কেউ স-মিল থেকে ব্যবহারের জন্য কাটিয়ে এনেছে।
স্থানীয় মেম্বার মোহাম্মাদ আলী কাগুচী বলেন, চেয়ারম্যান শেখ আব্দুর রহিমের সাথে কথা বলেন। মহিলা মেম্বার মোছা. সাহিদা বেগম বলেন, আমি চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করতে পারিনি! উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ফোনে রিং বাজলেও ফোন ধরেনি। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তার ফোনে রিং বাজলেও ফোন না ধরার কারনে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।