খোলা কলাম: বিচার মানি, তালগাছ না কাটলে অবৈধ দখল সম্ভব নয়


প্রকাশিত : আগস্ট ২০, ২০১৯ ||

সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীন সাতক্ষীরা-কালিগঞ্জ সড়কের সখিপুর মোড়ের পূর্বদিকে সরকারী খাল। খালের পাড় দখল করে সড়কমুখী করে সরকারী জায়গায় গড়ে উঠেছে বহু ব্যবসায়ী স্থাপনা ও একটি পাঞ্জেগানা মসজিদও। মসজিদের উত্তর-পূর্ব কোণে দাঁড়িয়ে আছে একটা সুন্দর স্বাস্থ্যবান তালগাছ। এই নিরীহ গাছটি অনেক দিন হতে স্থানীয় প্রভাবশালী দখলদার মহলের কুনজরে পড়ে আছে। কারণ এটা না কাটলে খালের দিকে তাদের স্থাপনা সম্প্রসারণ তথা বৃহত্তর দখল সম্ভব হচ্ছে না। কিন্তু সরকারী গাছ বলে কথা! প্রকাশ্যে কেটে ফেলা সম্ভব নয়। তাই বিগত কয়েক বৎসর যাবৎ চলছে নানামুখী চক্রান্ত ও বিবিধ প্রকার নাশকতামূলক কাজ। সম্প্রতি গাছটির মাথা মুড়িয়ে কেটে দেওয়া হয়েছে। ইতঃপূর্বে এভাবে কেটে মাথায় থায়োডিন নামক সাংঘাতিক বিষ পর্যন্ত ঢেলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু, রাখে আল্লাহ্ মারে কে! গাছটি এখনো বেঁচে আছে।
দেশে একদিকে যখন সরকারী-বেসরকারী পর্যায়ে জোরকদম বৃক্ষরোপণ অভিযান চলছে, তখন অন্যদিকে এহেন বৃক্ষনিধন প্রচেষ্টা অনাকাক্সিক্ষত, বিশেষ করে তালগাছের মত এমন নিজে বজ্রপাত ধারণ করে মনুষ্যকুলকে রক্ষাকারী উপকারী বৃক্ষ।
এ অবস্থায় এলাকার সুশীল সমাজ ‘জীবনে’র পক্ষে, এহেন অন্যায় হত্যা ও মৃত্যুর বিপক্ষে। কিন্তু তারা দুর্বল ও অসহায়। কামারুজ্জামান, দেবহাটা, সাতক্ষীরা।