জেলাবাসীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও সহযোগিতায় জনসচেতনতা সৃষ্টির কারণে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কমেছে: জেলা প্রশাসক


প্রকাশিত : আগস্ট ২০, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘সচেতন হউন ডেঙ্গু প্রতিরোধ করুন’ এই শ্লোগানে সাতক্ষীরায় এডিস মশার প্রজনন স্থান ধ্বংশে পরিচ্ছন্নতা অভিযানের অংশ হিসেবে হ্যান্ডবিল বিতরণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক অধিকার ও উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির আয়োজনে শহরের তুফান কোম্পানী মোড় হতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতামূলক র‌্যালি বের হয়ে শহরের নিউ মার্কেট মোড় (শহীদ আলাউদ্দিন চত্বর) এ আলোচনা সভাস্থলে গিয়ে মিলিত হয়। এসময় সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক অধিকার ও উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভাপতি দৈনিক দৃষ্টিপাত পত্রিকার সম্পাদক জি.এম নুর ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক এস.এম মোস্তফা কামাল। এসময় তিনি বলেন, সাতক্ষীরা জেলাবাসীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও সহযোগিতায় জনসচেতনতা সৃষ্টির কারণে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কমেছে। সাতক্ষীরাতে ডেঙ্গু নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই। নিজ নিজ এলাকা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখলে ও সচেতন থাকলে সাতক্ষীরা জেলা দ্রুত ডেঙ্গুমুক্ত হবে। আমাদের সম্মিলিত উদ্যোগের কারণে দ্রুত ডেঙ্গু প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়েছে।’
আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক অধিকার ও উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক ডা. আবুল কালাম বাবলা, অধ্যাপক মোজাম্মেল হোসেন প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক অধিকার ও উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সহ-সভাপতি কাজী শওকত হোসেন ময়না, আব্দুর রব ওয়ার্ছি, সাধারণ সম্পাদক মো. মশিউর রহমান বাবু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফরিদা আক্তার বিউটি, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান রাসেল, সাংগঠনিক সম্পাদক (উন্নয়ন) পৌর কাউন্সিলর জ্যোৎ¯œা আরা, অফিস সম্পাদক এস.এম আব্দুর রশীদ, মহিলা সম্পাদিকা মুর্শিদা আক্তার, প্রচার সম্পাদক মো. আশরাফুল করিম ধনী, নির্বাহী সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের সরদার, ওয়ারেশ খান চৌধুরী, মোহাম্মদ আলী সিদ্দীকি, পৌর কাউন্সিলর শেখ শফিক উদ-দৌলা সাগর, শেখ আব্দুস সাদেক, অধ্যক্ষ মো. রেজাউল করিম, আব্দুল গফ্ফার, মো. সাহারুল ইসলাম, প্রভাষক মো. কামরুজ্জামান, নাসির উদ্দিন প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক অধিকার ও উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক ডা. আবুল কালাম বাবলা।