সুন্দরবনে প্রবেশ নিষিদ্ধের প্রতিবাদে শ্যামনগরে জেলেদের মানববন্ধন


প্রকাশিত : আগস্ট ২০, ২০১৯ ||

মুন্সীগঞ্জ/শ্যামনগর (সদর) প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা রেঞ্জের পশ্চিম সুন্দরবনে মাছ ও কাঁকড়া আহরণের পাশ-পারমিট বন্ধ থাকায় জেলে পরিবারগুলোর উপরে র্দুদশা নেমে এসেছে। গত জুলাই-আগষ্ট মাসে বন-বিভাগ মাছ ও কাঁকড়ার পাশ-পারমিট বন্ধ ঘোষনা করায় সুন্দরবন থেকে মাছ ও কাঁকড়া আহরণ করতে পারছে না জেলেরা। ফলে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে বনের উপর নির্ভরশীল হাজার হাজার জেলে।
গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বুড়িগোয়ালীনী, কদমতলা, কৈখালি ও কোবাদক ৪টি ষ্টেশনের সামনে হাজার হাজার জেলে বাওয়ালীরা মানববন্ধনে মিলিত হয়। তারা মানববন্ধকালে বলেন বর্তমান মাছ ও কাঁকড়ার পারমিট বন্ধ থাকায় বৈধভাবে জেলেরা সুন্দরবনে ঢুকতে পারছেনা। বৈধভাবে জেলেরা পাশ-পারমিট নিয়ে সুন্দরবনে মাছ ও কাঁকড়া অবাধে ধরতে পারার দাবী জানায়।
কাঁকড়া র্শিকারী জেলে বুড়িগোয়ালীনীর হানিফ গাজী, আবু হাসান, আব্দুস সাত্তার বলেন, সুন্দরবনে প্রবেশে জেলেদের পাশ না দিলে আমাদের পরিবারের লোকেরা না খেয়ে মারা যাবে। আমরা সুন্দরবনের উপর র্নিভরশীল। আমাদের পূর্ব পুরুষেরাও সুন্দরবনে মাছ ও কাঁকড়া ধরে জীবিকা র্নিবাহ করতেন।
মাছ ধরা জেলে গাবুরার রফিকুল গাজী, হামিদ গাজী, সরবাদু জানায়, পাশ-পারমিট বন্ধ থাকায় মাছ ধরা জেলেদের পরিবারগুলোয় দুর্দশা নেমে এসেছে। তবে মৎস্য বিভাগ থেকে ৪৭ কেজি করে চাল দেওয়া হলেও বন-বিভাগ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো সহযোগিতা পাননি বলে জেলেরা জানান। এসময়ে সুন্দরবন উপকূলীয় গাবুরা, বুড়িগোয়ালীনী, মুন্সিগঞ্জ, রমজাননগন, কৈখালি সহ আরো কয়েকটি ইউনিয়নের মাছ ও কাঁকড়া ধরা হাজার হাজার জেলে এসব মানববন্ধনে উপস্থিতি ছিলেন।
রমজাননগর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আল মামুন মানববন্ধনকারীদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে বলেন, পাশ পারমিট বন্ধ থাকায় সুন্দরবনের উপর নির্ভরশীল হাজার হাজার জেলে পরিবারে অসহনীয় দুর্ভোগ নেমে এসেছে। বিষ প্রয়োগে মাছ ও কাঁকড়া শিকারী জেলেদের আইনের আওতায় এনে অপর জেলেদের জন্য মাছ ও কাঁকড়া শিকারের পাশ প্রদানের আহবান জানান।
সাতক্ষীরা রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা রফিক আহম্মেদ বলেন, সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ ধরার কারনে জেলেদের সুন্দরবনে নদী-খালে মাছ আহরণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।