সাতক্ষীরা ডাকঘরের প্রধান পরিদর্শকের বিরুদ্ধে অর্থের বিনিময়ে পোস্ট মাস্টারপদে নিয়োগ দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশিত : আগস্ট ২১, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা ডাকঘরের প্রধান পরিদর্শক অরুন কৃষ্ণের বিরুদ্ধে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ভালুকাচাঁদপুর শাখা ডাকঘরে ৬০ বছরের এক বৃদ্ধকে পোস্ট মাস্টার (ই.ডি.এ) পদে নিয়োগ দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে উক্ত সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন সদর উপজেলার ভালুকাচাঁদপুর গ্রামের কামরুজ্জামানের মেয়ে আম্বিয়া খাতুন।
তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ভালুকাচাঁদপুর ডাকঘরের ই.ডি.এ পদে নিয়োগের জন্য প্রধান শাখা কর্তৃক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হলে উক্ত পদে একমাত্র মহিলা প্রার্থী হিসেবে আমি আবেদন করি। প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী গত ২৯-৩-২০১৯ তারিখে লিখিত পরীক্ষায় আমিসহ ৯জন প্রার্থী অংশ গ্রহণ করি। এরমধ্যে বৃদ্ধ অসিত কুমারও অংশ গ্রহণ করেন। কিন্তু পরীক্ষা শেষে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী নির্দিষ্ট তারিখে পরীক্ষার ফলাফল দেওয়ার কথা থাকলেও সেদিন ফলাফল প্রকাশ না করে সাতক্ষীরা প্রধান ডাকঘরের পরিদর্শক দুর্নীতিবাজ অরুন কৃষ্ণ বলেন, পরীক্ষায় অংশ গ্রহণকারীদের মধ্যে প্রথম হয়েছেন শরিফুল ইসলাম। কিন্তু তিনি তো এ চাকরি করবেন না। সে কারণে সেখানে অসিত কুমারকে নিয়োগ দেয়া হলো। অথচ একমাত্র মহিলা প্রার্থী হিসেবে আমার সেখানে অগ্রাধিকার থাকার কথা।
তিনি আরো বলেন, লিখিত পরীক্ষার আগের দিন সাতক্ষীরা ডাকঘরের প্রধান পরিদর্শক দুর্নীতিবাজ অরুন কৃষ্ণ পোস্ট মাস্টার রহিমা খাতুনের মাধ্যমে আমার কাছে ঘুষের প্রস্তাব দেন। কিন্তু আমি দরিদ্র পরিবারের হওয়ায় তার চাহিদা মত টাকা না দিতে পারায় আমাকে চাকরিটা দেয়া হয়নি। শুধু আমাকে নয়, যিনি তিল তিল করে ওই শাখাটি দাঁড় করিয়েছিলেন সেই প্রতিবন্ধী রহিমার সন্তানকেও চাকরিটা দেওয়া হয়নি। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে রহিমার সন্তানকে চাকরি হওয়ার কথা। আর তা না হলে একমাত্র মহিলা প্রার্থী হিসেবে আমার চাকুরিটা হওয়ার কথা থাকলে তা হয়নি। কারন আমরা দু জনই পরিদর্শক অরুন কৃষ্ণের চাহিদা অনুযায়ী টাকা দিতে পারেনি। এই সুযোগে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে একটি কোম্পানীতে চাকরিরত ৬০ বছরের বৃদ্ধ অসিত কুমারকে নিয়ম বর্হিভুতভাবে চাকুরিটা দিলেন পরিদর্শক অরুন কৃষ্ণ। এমতাবস্থায় আমি একজন অসহায় বেকার নারী হিসেবে ওই নিয়োগ বাতিল করে প্রকৃত দাবীদার ও যোগ্য ব্যক্তিকে ওই পদে নিয়োগ দানের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী ও ডাকবিভাগের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।