ডুমুরিয়ায় মাহিন্দ্র-ইজিবাইক ধর্মঘট চরম ভোগান্তিতে যাত্রীসাধারণ


প্রকাশিত : আগস্ট ২৪, ২০১৯ ||

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি: ডুমুরিয়ায় ইজিবাইক ও মাহিন্দ্র অবাধ চলাচলের দাবিতে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে মাহিন্দ্র মালিক, শ্রমিক ঐক্য পরিষদ ও ইজিবাইক (থ্রী-হুইলার) শ্রমিক ইউনিয়ন যৌথভাবে ধর্মঘট পালন করেছে। শনিবার সকাল থেকে ২দিনের আহুত ধর্মঘটের প্রথম দিনে যাত্রী সাধারন পড়েছেন চরম বিপাকে ও ভোগান্তিতে। মাহিন্দ্র ইজিবাইক বন্ধ থাকায় শনিবার সকাল ১০টা দিকে বাসস্ট্যান্ডে খুলনায় যাওয়ার জন্য শুরু হয় বাসে উঠার প্রতিযোগীতা। শিক্ষার্থী, বৃদ্ধ, নারী ও শিশুরা পড়ে চরম ভোগান্তিতে। দূর-দূরান্তের যাত্রীরা বাসে উঠতে না পেরে রোদে রাস্তার উপর বসে থাকতে দেখা যায়। অনেকেই বাড়ি ফিরে যায়। জানা গেছে, মহাসড়কটিতে চলাচলকারী যাত্রীবাসী বাসগুলো খুলনা থেকে ডুমুরিয়ার যাত্রীদের নিতে চায় না। এমনকি কোন যাত্রী বাসে উঠলে হেলফার এবং কন্ডাক্টররা যাত্রীদের হেনস্ত করে থাকেন। অনেক সময় মহিলা যাত্রীদের দাঁড়িয়ে নিলেও তাদের সাথে অশ্রাব্য ভাষা ব্যবহার করে থাকেন। ফলে যাত্রীরা মাহিন্দ্র, ইজিবাইকে ওপর নির্ভরশীর হয়ে চলাচল করতে স্বচ্ছন্দ্যবোধ করে থাকেন। এলাকার বেকার যুবকরা বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে মাহিন্দ্র ইজিবাইক ক্রয় করে এ সড়কে যাত্রী বহন করে জীবিকা অর্জন করে থাকেন। মহাসড়কে এ যান চলাচল নিষিদ্ধ থাকায় প্রতিনিয়ত ট্রাফিক সদস্যরা গাড়ি বন্ধ করে মামলা দিয়ে হেনস্ত করেন বলে জানান মাহিন্দ্র ও ইজিবাইক শ্রমিক ও চালকেরা। এ নিয়ে বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক ভাবে সমাধান করতে গিয়েও সমাধান হয়নি। শনিবার সকাল থেকে মাহিন্দ্র ইজিবাইক চালকেরা তাদের খুলনা সাতক্ষীরা সড়কে গাড়ি চলাচলের অনুমতি পাওয়ার দাবিতে ২ দিনের ধর্মঘট ডেকেছেন বলে মাহিন্দ্র মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহবায়ক প্রবীর জোয়ার্দ্দার, ইজিবাইক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মিল্টন শেখ জানান। বরিবার সংগঠনের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হবে বলে জানানো হয়।