ডেঙ্গু ও জলাবদ্ধতা নিরসনে মানুষের বাড়ি বাড়ি যেতে হবে: ডিসি মোস্তফা কামাল


প্রকাশিত : আগস্ট ২৬, ২০১৯ ||

মীর মোস্তফা আলী: এডিস মশা প্রজননক্ষেত্র ধ্বংশ, ডেঙ্গু সচেতনতা ও জলাবদ্ধতা নিরসনে তৃণমূল পর্যায়ের মানুষের সচেনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার দুপুরে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাশীষ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সাতক্ষীরাস্থ উপ-পরিচালক শওকাত হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান কহিনুর ইসলামসহ সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের চেয়াম্যান ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ।
প্রধান অতিথি এ সময় ডেঙ্গু প্রতিরোধে ও জলাবদ্ধতা নিরসনে সকলকে একযোগে কাজ করার আহবান জানিয়ে বলেন, জনপ্রতিনিধিদের যে কাজ তা সঠিকভাবে হচ্ছে না। আপনাদের কাজ সাধারণ মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সচেতন করা। সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমরা আমাদের সচেনতামূলক কাজের প্রশংসা পাচ্ছি। কিন্ত আপনারা তৃণমূলপর্যায়ের মানুষকে সচেতন করতে না পারার কারণে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। স্থানীয়ভাবে অন্য জেলার তুলনায় সাতক্ষীরায় এ রোগীর সংখ্যা বেশি। আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে সরকারিভাবে সচেতন করছি। আপনারা তা করেননি। আপনারা ইউনিয়নের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে সাধারণ মানুষের বাড়ি যাননি। তৃণমূল পর্যায়ে সেসব জায়গা থেকে সঠিকভাবে কাজ হচ্ছে না। এডিস মশা প্রজননক্ষেত্র ধ্বংস, ডেঙ্গু সচেতনতা ও জলাবদ্ধতা নিরসনের কাজে সকল চেয়ারম্যান, মেম্বর, গ্রামপুলিশ ও ন্যাশনাল সার্ভিসের কর্মীরা সহযোগিতা করবেন। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে স্ব স্ব মন্ত্রণালয়ে রিপোর্ট করা হবে।
জনপ্রতিনিধিরা মানুষের বাড়ি গেলে মানুষ সচেতন হবে। জনপ্রতিনিধিদেরও ভাল লাগবে। মানুষের সেবায় প্রকল্প তৈরি করে ১% এর টাকা দিয়ে ফগার মেশিন কিনুন, স্প্রে করুন। ডেঙ্গুরোগ থেকে বাচতে এডিস মশা প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস করুন। যতদিন ফগারকিনতে না পারেন কৃষিযন্ত্র দিয়ে স্প্রে করুন। মনে রাখবেন নারকেলের খোলা, মালা, মালসা, ফুলের টব, গরু খাদ্যের পাত্রসহ এ ধরনের কোন পাত্রে বৃষ্টির পরিষ্কার পানি এক থেকে দু’দিন জমে থাকলে এবং এসি ও ফ্রিজের জমে থাকা পানিতেও এডিস মশার লার্ভা জন্ম নেয়। আপনারা মানুষের বাড়ি যান এ ক্ষেত্রগুলি উপুড় করে এডিস মশা প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস ও ডেঙ্গু রোগ বিষয়ে সচেতনতা করুন।
আজ ২৬ আগস্ট সোমবার থেকে প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রতিদিন দু’ঘন্টা এ নিয়ে কাজ করবেন। তাহলে দেখবেন ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়বে না। বরং কমতে থাকবে। এভাবে এক সপ্তাহ কাজ করেন। ডেঙ্গু ও জলাবদ্ধতা নিয়ে এ জেলার মানুষের কথা চিন্তা করে আমার রাতে ঘুম হয় না। জলাবদ্ধতা নিরসনে জেলা প্রশাসনের পক্ষে যা যা করার তাই করবো। প্রয়োজনে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় পানি চলাচলের গতিপথ পরিষ্কার করা হবে। কোন বাঁধাই মানা হবে না। বাঁধা দিলে তাকে জেলে যেতে হবে।