ব্রিজ নয় যেন মরণফাঁদ!


প্রকাশিত : August 26, 2019 ||

মনিরুল ইসলাম মনি: কলারোয়া পৌর সদরের বেতনা নদীর উপর নির্মিত জনগুরুত্বপূর্ণ দক্ষিণ মুরারিকাটি কাঠের ব্রিজটি (তারক নন্দী ব্রিজ) দীর্ঘদিন যাবত সংস্কার না করায় এবং পৌর কতৃপক্ষের উদাসীনতায় বর্তমানে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। উপজেলা সদরের সাথে দ্রত যোগাযোগ ও বাণিজ্যিক সুবিধাসহ বিভিন্ন কারণে প্রতিদিন পাঁচটি গ্রামের শিশু শিক্ষার্থী, নারী, বৃদ্ধসহ প্রায় তিন হাজার মানুষ ঝুঁকিপূর্ণ এই কাঠের ব্রিজ দিয়ে চলাচল করছে। স্থানীয়দের দাবি, এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে কাঠের ব্রিজটির পরিবর্তে নতুন পাকা ব্রিজ নির্মাণের দাবি করা হলেও স্বাধীনতার ৪৯ বছরেও বাস্তবায়ন হয়নি।
সরজমিনে দেখা গেছে, প্রতিদিন এ জরাজীর্ণ এই কাঠের ব্রিজ দিয়ে পৌরসদরের দক্ষিণ মুরারকিাটি, গোপিনাথপুর, পাথরঘাটা, জেলেপাড়া, পালপাড়া, কর্মকারপাড়া, উপজেলার ঘরচালা গ্রাম, কাশিয়াডাঙ্গা ও কুমারনল গ্রামের শিশু শিক্ষার্থী, ছাত্রছাত্রীসহ প্রায় তিন হাজার মানুষ উপজেলা ও পৌর সদরে যাতায়াত করে। তবে, দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় বর্তমানে এলাকাবাসীকে চরম ঝুঁকি নিয়ে ব্রিজটি পার হতে হচ্ছে। কাঠের ব্রিজটির অধিকাংশ স্থানই ভাঙাচোরা। কাঠের পাটাতন নেই বললেই চলে। লোহার কাঠামোর অবস্থাও একই রকম। তারপরও চরম ঝুকি নিয়ে যাতায়াত করছে এসব মানুষেরা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মুরারিকাটি গ্রামের জমিদার তারক নন্দী এলাকার উন্নয়নে তারক নন্দী প্রাথমিক বিদ্যালয় (বর্তমানে দক্ষিন মুরারিকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়) ও বেতনা নদীর উপর লোহার ফ্রেম ও কাঠের পাটাতন দিয়ে তারক নন্দী ব্রিজটি (বর্তমানে দক্ষিণ মুরারিকাটি ব্রিজ) নির্মাণ করেন। পরর্তীতে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর উক্ত কাঠের ব্রিজটি পাকা করনের জন্য স্থানীয় এলাকাবাসী জনপ্রতিনিধিসহ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করলেও আজো কতৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। তবে, এলাকাবাসী চলাচলের জন্য একাধিকবার নিজেদের উদ্যেগে ব্রিজটি সংস্কার করেছেন। এছাড়া কলারোয়া পৌরসভা গঠনের পর ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের ব্রিজটির কয়েকটি স্থানে পাটাতন সংস্কার করা হলেও তা বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। বর্তমানে ব্রিজটি সংস্কার বা নতুন নির্মাণ করা না হলে যে কোন সময় ভেঙে পড়ে প্রাণহানী ঘটতে পারে।
এবিষয়ে জানতে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর (৭নং) জাহাঙ্গীর কবীরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, গুরুত্বপূর্ণ এই বিজ্রটি দ্রুত সংস্কার করা হবে। এ বিষয়ে তিনি পৌর মেয়রকে অবহিত করেছেন বলে জানান।
কলারোয়া পৌরসভার (ভারপ্রাপ্ত) মেয়র মনিরুজ্জামান বুলবুল জানান, আমি স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পেরেছি পোপিনাথপুর সংলগ্ন দক্ষিন মুরারিকাটি কাঠের ব্রিজটি ঝুকিপুর্ন অবস্থায় রয়েছে। তবে, কাঠের ব্রিজটি সংস্কারের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে পৌরসভার মাসিক মিটিংয়ে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরএম শাহনেওয়াজ সেলিম জানান, ব্রিজটির বিষয়ে আজ আপনার কাছ থেকে জানতে পারলাম। এ বিষয়ে পৌর মেয়রের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু জানান, এটি পৌরসদরের একটি গুরুত্বপুর্ন ব্রিজ। বর্তমানে কাঠের ব্রিজটি চরম ঝুকিপুর্ন থাকায় অতিদ্রুত সস্কারের প্রয়োজন। সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ কমাতে তিনি পৌর কতুপক্ষকে ব্যবস্থা নেয়ার আহবান জানান। এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, পৌরসভার অভ্যন্তরে উপজেলা পরিষদের কাজ করা সম্বব নয় বলে আমরা ব্যবস্থা নিতে পারছি না।