আলীপুরে পৈত্রিক সম্পত্তি দখল চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশিত : আগস্ট ২৭, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার আলীপুরে দীর্ঘ দিনের দখলীয় পৈত্রিক সম্পত্তি কালো টাকার প্রভাবে দখল চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন সদর উপজেলার মাহমুদপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে ইনামুল হক।
তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, মাহমুদপুর মৌজায় জেএল নং-৩৫, এস এ খতিয়ান ১১৩০০ ও ১১৩০১ দাগে ১ একর ১২ শতক সম্পত্তি আমার পিতাসহ ৪ চাচার মধ্যে বন্টন হয় দীর্ঘ প্রায় ৬০ বছর পূর্বে। সে অনুযায়ী আমরা দীর্ঘদিন শান্তিপূর্নভাবে ভোগদখল করে আসছিলাম। ওই বন্টন মেনে নিয়ে আমার পিতা আব্দুর রহিম, চাচা আব্দুল বারী, তার পুত্র জিয়াউল হক ভোগদখলে থাকা অবস্থায় মারা যান। আমার চাচাতো ভাই জিয়াউল হকের ছেলে রিয়াজুল হক মিঠুও গত ৪০ বছর যাবত ওই ভাগ বাটোয়ারা মেনে নিয়ে বসবাস করে আসছিল। ঠিক একইভাবে ভিটাবাড়ির ২৪ শতক সম্পত্তির মধ্যে আমরা সম্পত্তির পিছনে ও তারা সম্পত্তি সামনে রাস্তার পাশে মেনে নিয়ে দীর্ঘদিন বসবাস করে আসছিলাম। অথচ দীর্ঘদিন ধরে আমাদের ভোগদখলীয় সম্পত্তি মিঠু একই এলাকার মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র ফরিদ হোসেনের সহযোগিতায় গায়ের জোরে ভোগ দখলের পায়তারা শুরু করেছে। সম্প্রতি রাস্তার পাশে আমার জমিতে ৫ টি দোকান ঘর নির্মানের জন্য পুকুর ভরাট করলে ভোমরা বন্দরের টি বয় থেকে সদ্য কোটিপতি ফরিদ হোসেন ওই সম্পত্তি মিঠুর কাছ থেকে ক্রয় করেছে বলে প্রচার দিয়ে আমার ভরাট করা সম্পত্তিতে গত ১৯-০৬-২০১৯ তারিখে গায়ের জোরে দোকানঘর নির্মান শুরু করে। এ বিষয়ে গত ২৬-০৭-২০১৯ তারিখে থানায় ওসি সাহেবের সামনে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুর রউফসহ গণ্যমান্য ব্যক্তদের উপস্থিতিতে শালিসি বৈঠক হয়। সেখানে বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়ায় ওসি সাহেব বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেন। এপরও তারা নির্মান কাজ বন্ধ না করে গত ২৯-৭-২০১৯ তারিখে বর্তমান বাজার মূল্য ছাড়াও অনেক উচ্চমূল্যে ১০ শতক জমি ৩০ লাখ টাকায় একটি বায়না পত্র করে দখলের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। শুধু তাই নয় গত ২৫/০৮/২০১৯ তারিখে স্থানীয় দৈনিক পত্রিকায় ফরিদ ঈদের আগে জমি ক্রয় করেছে এবং ওসি সাহেব বিষয়টি নিষ্পত্তি করেছেন মর্মে প্রকাশ কেের। অথচ বিষয়টি ওসি সাহেব নিষ্পত্তির জন্য চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দিয়েছেন। কিন্তÍু চেয়ারম্যান সাহেব এখনও শপথ না নেওয়ায় তিনি বিষয়টি নিয়ে বসেননি। এরই মধ্যে ফরিদ আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে ফায়দা লুটার উদ্দেশ্যে ওসি সাহেবের নির্দেশ অমান্য করে উল্টো ওসি সাহেবের নামে মিথ্যাচার করে পত্র পত্রিকায় প্রতিবাদ লিপি প্রকাশ করেছে। সম্প্রতি আমার ভাইপো ছিপ দিয়ে ওই পুকুরে মাছ ধরতে গেলে তাকেও গলা চেপে মারপিট করে। এতে আমি প্রতিবাদ করলে সে আমাকে খুন জখমের হুমকি প্রদর্শন করে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় আমি ফরিদ গং এর হাত থেকে আমার পৈত্রিক সম্পত্তি উদ্ধার এবং জীবনের নিরাপত্তার দাবীতে পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।