আশাশুনি রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টর ঈমান উদ্দিনের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টর ঈমান উদ্দিনের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ উঠেছে। আশাশুনি উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কতিপয় কর্মচারীরা জানান, আশাশুনি উপজেলা রিসোর্স সেন্টারে ঈমান আলী যোগদানের পর থেকে অনিয়ম দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে। প্রশিক্ষার্থীনাদের কাছ থেকে নাস্তা টাকা, যাতায়াতের টাকা সহ বিভিন্ন ভাবে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন তিনি।
তারা জানান, প্রতি ব্যাচে প্রশাসনিক খরচ ২৫০০ টাকা, প্রতি জনে উপকরণ ১০০ টাকা। অথচ উপকরণ দেওয়া হয় ৫ টাকা দরের কলম, ১০টাকা দরের প্যাড, ১৫ টাকা দরের ফাইল, ৫ টাকায় নেমকার্ড মোট ৩৫ টাকা ব্যয় করা হয়। বাকী ৬৫ টাকা করে নিজের পকেটে রাখে। একই ভাবে লিডারশীপ প্রশিক্ষণেও নামমাত্র উপকরণ দিয়ে সরকার কর্তৃক বরাদ্দ ৬ হাজার টাকা, প্রশাসনিক ব্যয় আড়াই হাজার টাকা, কলম ৫ টাকা, নেমকার্ড৫ টাকা, প্যাড ১০টাকা, ব্যাগ বাবদ বরাদ্দ ৫শত টাকা থাকলেও ব্যাগ দেন মাত্র ১৫০ টাকার। এভাবে নি¤œমানের উপকরণ দিয়ে সরকারের টাকা নিজের পকেটস্থ করে আত্মসাথ করেছেন তিনি।
এছাড়া মাসে তিনি মাত্র পাঁচ দিন অফিস করেন। বাকী সময় কাটান তার নিজ কাজে। এতে করে আশাশুনি উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে বলে মনে করেন তারা। এবিষয়ে ইন্সট্রাক্টর ঈমান উদ্দিনের দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এঘটনায় অভিযুক্ত ইন্সট্রাক্টর ঈমান উদ্দিনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে যোগাগের চেষ্টা করলে তার স্ত্রী ফোনটি রিসিভ করে বলেন, তিনি বাইরে আছেন। পরে কথা বলুন।