যে মাটিতে নাড়ি পোতা আছে/ মোসলেহ উদ্দিন বাবুল


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯ ||

কারুময় পত্রাবলী, কমনীয় কানের লতিতে,
দুলে ওঠে, দোল খায় মায়াবী চাঁদের মতো
ঝিরি ঝিরি সুস্মিত হাওয়ায়;
ছলকানো সুন্দরের ফাঁকে নীলাকাশ
আদিগন্ত পেঁজা ছেঁড়া মেঘ
পাখির পালক হয়ে শুভ্রতা ছড়ায়:
নির্মেদ দীর্ঘদেহী নিম, অভ্রভেদী বাড়ন্ত ঝালর
ওখানে আমার আদি নাড়ি পোতা আছে ।
যেখানেই যাই যত দুরে, দুর পরবাসে
মাটি ডাকে, নাড়ি টানে আয় আয় বাতাসেরা ডাকে
আমি তো চাইনা যেতে ফিরে যেতে ,
পূণরায় বৃত্তাবদ্ধ ছকে ;
তবুও আকাশ ডাকে, একখন্ড ছেঁড়াকাশ,
কারুময় পত্রাবলী, সাদা মেঘ, নিম —
পাখির পালক হয়ে মায়াবী অতীত ডাকে
স্বর্গ-মর্ত সর্বব্যাপী আহবান ছড়ায় ,
মাটি ডাকে, নাড়ি ডাকে, শিকড় ছড়ায় —
প্রাণ কি এভাবে থাকে মায়াময় ছত্রতলে !
আকাশ কি খ- হয়ে ছলকে ওঠা সুন্দরের টানে
যুথভ্রষ্ট হয় !
ফিরে কি যেতেই হবে !
ফিরে কি যেতেই হয় ছেড়ে আসা বৃত্তাবদ্ধ ছকে !