চিকিৎসার অভাবে পঙ্গুত্বকে বরণ করতে হচ্ছে অসহায় জাহানারা খাতুনকে


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯ ||

দিপঙ্কর বিশ্বাস: চিকিৎসার ব্যয় বহন করতে না পারায় পঙ্গুত্বকে বরণ করতে হচ্ছে দেবহাটা উপজেলার সখিপুর ইউনিয়নের মাঝ সখিপুর গ্রামের অবর আলীর স্ত্রী জাহানার খাতুনকে (৪০)। অন্যদিকে চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু যেন প্রতিনিয়ত হাতছানি দিয়ে ডাকছে পঙ্গু জাহানারা খাতুনকে।
চিকিৎসার অভাবে দুই পা থাকার সত্ত্বেও পঙ্গুত্বকে মেনে নিয়ে জিবন যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। বয়স তাকে কাবু করতে না পারলেও পঙ্গুত্বের কারনে বিনা চিকিৎসায় আজ দুর্বিসহ হয়ে পড়েছে জাহানার খাতুনের জীবন।
জাহানার খাতুনের স্বামী অবর আলী জানান, বিগত ১৪ বছর আগে আমার স্ত্রী জাহানার খাতুন ভয়াবহ এক সড়ক দূর্ঘটনায় তার একটি পায়ে প্রচন্ড আঘাত পায়। তাৎক্ষণাত আমি আমার স্ত্রীকে প্রথমে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাই। এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাই। সেখান থেকে দীর্ঘদিন চিকিৎসা শেষে বাড়িতে আনা হয়। এই দীর্ঘ ১২ বছর ভালই চলছিল কিন্তু গত বছর তার পায়ে হটাৎ ইনফেকশন হয়ে মাংস পচন ধরে আবারও দ্রুত চিকিৎসার জন্য প্রথমে সাতক্ষীরায় সদর হাসপাতাল পরবর্তীতে চিকিৎসার জন্য খুলনায় নিয়ে যাই। সেখানে কিছুদিন চিকিৎসা পর টাকার অভাবে তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়। তার পায়ে অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। এমনিতেই আমি একজন ভ্যান চালক এর আগে চিকিৎসা ব্যয়ভার ধার-দেনা করে চালিয়েছি কিন্তু বর্তমান যে অবস্থা আমার মত গরীব ভ্যান চালকের পক্ষে যে চিকিৎসার খরচ তা চালানো সম্ভব না। জাহানারা খাতুনের পরিবার সমাজের হৃদয়বান ব্যক্তিদের কাছে চিকিৎসার ব্যয় বহনের জন্য আকুল আবেদন জানিয়েছেন।