শ্যামনগরে কথিত মাদক ব্যবসায়ী উজ্জ্বল আটক: গা ঢাকা দিয়েছে হোটেল মালিক খোকন


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯ ||

পত্রদূত ডেস্ক: শ্যামনগর থানা পুলিশ একাধিক মাদক মামলার আসামী শেখ মাহফুজুল রহমান উজ্জ্বলকে মাদকসহ আটক করেছে। শনিবার গভীর রাতে উপজেলা সদর সন্নিকটে গোডাউন মোড় সংলগ্ন বরফকলের ভিতর হতে পুলিশের সহকারি উপ-পরিদর্শক রফিকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘেরাও করে তাকে আটক করে। সে রমজাননগর ইউনিয়নে মানিকখালি গ্রামে মৃত আব্দুল মান্নান শেখের ছেলে। এসময় তার অন্যতম সহযোগী নকিপুর গ্রামে মৃত খাজা নাজিম উদ্দীনের ছেলে শহিদুল্লাহকে আটক করে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে ২৩ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হলেও অপর সদস্যরা মাদকদ্রব্য নিয়ে পালিয়ে যায় বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় শ্যামনগর থানায় ১০ নং মামলা হয়েছে। শ্যামনগর থানার ওসি নাজমুল হুদা সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃতদের মাদক আইনে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আসামীদের ধরার চেষ্টা অব্যাহত আছে পুলিশ জানায়।

এদিকে অপর এক অভিযানে পুলিশের উপ-পরিদর্শক মামুন পরানপুর কাকড়ঘাটা গ্রামে সামছুর গাজীর ছেলে হাফিজুর গাজীকে ১০০ পিস ইয়াবাসহ আটক করে। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মেন্দিনগর গ্রাম থেকে ইয়াবাসহ তাকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে পুলিশের সাড়াশি অভিযানে একের পর এক মাদক ব্যবসায়ী আটক হওয়ার খবরে এ অঞ্চলের অপর কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী একাধিক মাদক মামলার আসামী উপজেলা সদর বাস টার্মিনাল সংলগ্ন সবজি হোটেলের মালিক বাদঘাটা গ্রামে মৃত বিষে গাজীর ছেলে খোকন গাজী গা বাঁচাতে গা ঢাকা দিয়েছে বলে সূত্রে জানা গেছে। খোকনকে আটক করা হলে এ অঞ্চলে মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে আসবে এমন ধারনা সুশীল সমাজের। দীর্ঘদিন ধরে খোকন হোটেল ব্যবসার আড়ালে পুরুষ-মহিলার সমন্বয়ে একাধিক এজেন্টের মাধ্যমে শ্যামনগর উপজেলা সদরসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে মাদক বিক্রি করে জিরো থেকে লাখপতি বনে গেছে। উপজেলা সদরে বাদঘাটা গ্রামে বিশাল অট্টলিকা নির্মাণাধীন আছে খোকনের। মাদকসহ বারবার আটক হয়ে জেল হাজতে গেলেও আইনের ফাক ফোকড়ে বেরিয়ে পুনরায় মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে সে।