দেবহাটার ২১টি পূজামন্ডপে শেষ হয়েছে প্রতিমা তৈরী: রঙ-তুলির আঁচড়ে ব্যস্ত শিল্পীরা


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯ ||

দেবহাটা ব্যুরো: হিন্দু ধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। প্রতিবছর উৎসবটির জন্য অপেক্ষা করেন হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। আগামী ৪ অক্টোবর ষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ এ উৎসবটি। এ বছর দেবহাটার ২১টি মন্ডপে শারদীয় দুর্গাপুজা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যেই অধিকাংশ মন্ডপে শেষ হয়েছে দেবী দুর্গার প্রতিমা তৈরী। এখন তড়িঘড়ি করে এগিয়ে চলছে রং তুলি দিয়ে দেবীকে সাজানোর কাজ। একই সাথে প্যান্ডেল ও সাজসজ্জার ডেকোরেশনের কাজে ব্যস্ত সময় কাটছেন সংশ্লিষ্টরা। এদিকে, সুষ্ঠু ও শান্তিপুর্ণ পরিবেশে হিন্দু ধর্মালবম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা উদযাপনের পাশাপাশি দেবহাটার ইছামতি নদীতে বিজয়া দশমীতে দুই বাংলার প্রতিমা বিসর্জনকে ঘিরে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে দেবহাটা থানা পুলিশ। প্রতিদিনই পূজা মন্ডপ গুলো পরির্দশন সহ আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ে মন্ডপ কতৃপক্ষের কাছে নিয়মিত খোঁজ খবর নিচ্ছেন পুলিশ সদস্যরা।
এবছর দেবহাটা উপজেলার গাজীরহাট সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, সুবর্নাবাদ সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, সখিপুর পালপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, পারুলিয়া জেলিয়াপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ ও পারুলিয়া সন্যাসখোলা সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপকে প্রশাসনিকভাবে অধিক গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচনায় নেয়া হয়েছে। এছাড়া দেবহাটার টাউনশ্রীপুর সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, টাউনশ্রীপুর পালপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, দেবহাটা ফুটবল মাঠ সংলঘœ সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, দেবহাটা বাজার সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, সখিপুরের কোড়া পাঁকড়াতলা সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, উত্তর পারুলিয়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, নোড়ারচক সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, বড়শান্তা সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, মাঝ পারুলিয়া দাশপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, কোমরপুর উত্তরপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, কুলিয়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, বহেরা সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, বালিয়াডাঙ্গা সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, কুলিয়ার শ্যামনগর পশ্চিমপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ, শ্যামনগর পূর্বপাড়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপ ও হিজলডাঙ্গা সার্বজনীন দুর্গাপূজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হবে।
উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র ঘোষ জানান, এ বছর দেবহাটা উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের মোট ২১টি মন্ডপে শারদীয় দূর্গা পুজা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যেই সকল মন্ডপের নেতৃবৃন্দদের সাথে নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় করা হয়েছে। প্রত্যেকটি মন্ডপে প্রশাসনের পাশাপাশি পূজা মন্ডপ কর্তৃপক্ষের স্বেচ্ছাসবকরা দায়িত্ব পালন করবেন। আশা করছি, অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে এবছর উৎসবমুখর পরিবেশে দুর্গোৎসব পালিত হবে। এই উৎসব রূপ নেবে সম্প্রীতির সেতুবন্ধনে।
দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, দেবহাটা থানা পুলিশ পূজা মন্ডপ গুলোকে সাধারণ, গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ-এই তিনটি ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। মন্ডপগুলোতে পুলিশের পাশাপাশি, র্যাব, বিজিবি, আনসার ও গ্রাম পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবে। কোন ব্যক্তি কিংবা গোষ্ঠী দুর্গাপূজায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে তাদেরকে কঠোরভাবে দমন করা হবে বলেও জানান তিনি।