কলারোয়ায় পূজামন্ডপে ভাষ্করদের নিপূনতায় নতুন রূপ পাচ্ছে প্রতিমা


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯ ||

আরিফ মাহমুদ: আসন্ন শারদীয় দূর্গোৎসবকে সামনে রেখে কলারোয়া উপজেলাব্যাপী ৪৩টি পূজোমন্ডপে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। দেবী প্রতিমা প্রস্তুতে শেষ মুহুর্তের কাজে অক্লান্ত পরিশ্রমে ঘাম ছড়াচ্ছেন তারা। রং-তুলির ছোয়ায় নিপূন শৈল্পিতা প্রকাশ পাচ্ছে ইতোমধ্যে। আগামি ৪অক্টোবর থেকে মহা ৬ষ্ঠী’র মধ্যে দিয়ে আনুষ্ঠানিকতায় শুরু হচ্ছে শারদীয় দুর্গা পূজা উৎসব। ৮অক্টোবর ১০মীতে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে এটা শেষ হবে। এ কারণে দ্রুততার সাথে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ। ভাষ্করদের নিপূন হাতের ছোয়ায় দিনের পর দিন নতুন রূপ পাচ্ছে মন্ডপের প্রতিমাগুলো।
সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা জানান, ‘আগামি ৩অক্টোবর দুপুর ২টা ২১মিনিটে পঞ্চমী তিথিতে দূর্গা বোধন ও শুভ পঞ্চমী পূজার মধ্যদিয়ে দুর্গতীনাশিনী দেবী দুর্গাপূজার শুভসূচনা ঘটবে।’
পৌরসদরসহ উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের পূজোমন্ডপ ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি মন্ডপেই প্রতিমা শিল্পীরা দেবী দুর্গা ঠাকুর তৈরি ও মন্দির সাজানোর কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন।
উল্লেখযোগ্য মন্ডপগুলোর মধ্যে রয়েছে কলারোয়া পৌর সদরের তুলশীডাঙ্গা ঘোষ পাড়া মন্ডপ, ঝিকরা হরিতলা সার্বজনীন পূজো মন্ডপ, পালপাড়া পূজো মন্ডপ, তুলশীডাঙ্গা কালী মন্ডপ, চন্দনপুর ইউনিয়নের নাথপুর দূর্গা পূজো মন্ডপ, কয়লা সর্বজনীন দূর্গা পূজো মন্ডপ, দেয়াড়া ঘোষ পাড়া পূজো মন্ডপ, জয়নগর পূজোমন্ডপ, কেঁড়াগাছি পূজো মন্ডপ ইত্যাদি। এবার ১টি পৌরসভা ও উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ৪৩টি পূজোমন্ডপে শারদীয় দূর্গোৎসবের আয়োজন শেষ পর্যায়ে। সবচেয়ে বেশি পূজোমন্ডপ পৌরসভা ও জয়নগর ইউনিয়নে ৮টি করে।
কলারোয়া উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মনোরঞ্জন সাহা জানান, ‘ধর্ম যার যার, উৎসব সবার।’ বিগত বছরে ন্যায় এবারো শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজা পালিত হবে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সন্দীপ রায় জানান- ‘দূর্গোৎসবে পূজা আয়োজনের প্রস্তুতি শেষের দিকে।’
কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মুনীর-উল-গীয়াস জানান, ‘পূজামন্ডপে শান্তিপূর্ণ নিশ্চিত করতে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হবে। এজন্য ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।’