ইটাগাছা মানিকতলা নিরীহ ব্যক্তির জমি দখলের অভিযোগ


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: শহরের ইটাগাছা মানিকতলা এলাকায় প্রায় দেড় যুগ ধরে অন্যের ক্রয়কৃত সম্পত্তি ভোগ করছেন মোজামগং। তারা সম্পূর্ণ গায়ের জোরে পেশিশক্তির ভয়ভীতি দেখিয়ে নিরীহ নজরুল ইসলামের ক্রয়কৃত সোয়া ৪ শতক জমি জবর দখল করে রেখেছেন মোজামরা। তারা জমির দখল না ছাড়ার কারণে একপ্রকার অবরুদ্ধ জীবন যাপন করছেন নজরুল ইসলাম। যতবারই জমিতে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন নজরুল ইসলাম ততবারই তার নামে দেওয়া হয়েছে মিথ্যা মামলা। বিষয়টি মিমাংসার স্বার্থে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর শেখ জাহাঙ্গীর হোসেন কালু কয়েক দফা বসাবসি করলেও মোজামগং তা মানেনি। বরং হুমকি দিয়ে বলেছে ‘ওই জমিতে যে পা আগে পড়বে, সেই পা কেটে নেওয়া হবে।’ এদিকে নিরীহ নজরুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে রাখায় বাড়ির উঠোনে জমেছে পানি। নোংরা ও পঁচা পানিতে দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে নজরুল ইসলামের পরিবারের জীবন। ইতোমধ্যে ওই পরিবারের দু’জন শিশু ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়েছে বলে জানান নজরুল ইসলাম।

তিনি আরও জানান, মোজামগংদের কারণে তিনি একপ্রকার বন্দী জীবন-যাপন করছেন। তারা মানে না কোনো আইন। মানেনা সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় কোনো বিধি-বিধান। সেটেলমেন্টের রেকর্ড উপেক্ষা করে অস্ত্র ও খুন খারাবির ভয়ভীতি দেখিয়ে ১৭টি বছর নির্যাতন চালাচ্ছে মোজামগং। নজরুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, কোবালামূলে ২০০২ সালে সোয়া ৯ শতক জমি কিনে সেখানে বসবাস করছি। কিন্তু দখলে আছি ৫ শতক। সোয়া ৪ শতক জমি এখনো আমি বুঝে পাইনি। জমি আমার নামে রেকর্ডও হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে পৌরসভার কাউন্সিলরের কাছে কয়েকবার অভিযোগও করেছি। কিন্তু প্রতিবারই তারা ঠ্যাং ছাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে শালিসের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে। তারা কোনো দলিলপত্রও দেখায় না। এব্যাপারে নিরীহ নজরুল ইসলাম জেলা প্রশাসকের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।