সৌদির ৩ ঘাঁটি ও ১৫০ বর্গকিমি. এলাকা দখলে নিয়েছে হুতিরা!


প্রকাশিত : October 2, 2019 ||

 অনলাইন ডেস্ক: ইয়েমেন সীমান্তবর্তী সৌদি আরবের নজরান প্রদেশে সাম্প্রতিক হামলায় সৌদি আরবের তিনটি সামরিক ঘাঁটি এবং ১৫০ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ন্ত্রণে নেয়ার দাবি করেছে ইরান-সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীরা।

মঙ্গলবার বিকালে ইয়েমেনের রাজধানী সানায় এক সংবাদ সম্মেলনে হুতি মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি এ দাবি করেন। খবর ইরনার।

তিনি বলেন, এই অভিযানে সৌদি সামরিক ঘাঁটি দখল এবং সেখান থেকে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ১৩০টির বেশি আর আর্মার্ড ভেহিকেল ধ্বংস ও দখল এসেছে।

সম্প্রতি যে ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে তাতে এসব এলাকায় নিজেদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের চিত্র দেখা গেছে বলেও দাবি করেন হুতি মুখপাত্র।

জেনারেল ইয়াহিয়া সারি আরও বলেন, আমাদের সামরিক বাহিনীর অভিযান বন্ধ হবে না; সশস্ত্র বাহিনী বিভিন্ন ধরনের অভিযান অব্যাহত রেখেছে এবং শত্রু র হামলা মোকাবেলার জন্য আমাদের হাতে প্রচুর অস্ত্র ও গোলাবারুদ রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার সৌদি আরবের ৫০০ সেনাকে হত্যা, দুই হাজার সেনাকে আটক ও সামরিক বাহিনীর যানবাহনের একটি বহরকে জব্দের কথা দাবি করেছে হুতি বিদ্রোহীরা।

৭২ ঘণ্টার ওই অভিযানে সৌদি আরবের ৫০০ সেনাকে হত্যা ও কয়েক হাজার সেনা সদস্য আটকের দাবি করেছে তারা। সৌদি সেনা হত্যা ও গ্রেফতারের দাবির পক্ষে প্রমাণ হিসেবে স্থির চিত্র ও অসম্পূর্ণ ভিডিও উপস্থাপন করেছেন বিদ্রোহীরা।

ছবিতে সেনারা উর্দি পরিহিত না, আবার দাবিকে সত্য বলে প্রমাণ করতে যথেষ্ট প্রমাণ যেমন নেই, তেমন সৌদি আরবের কাছ থেকেও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি।

উল্টে যাওয়া সৌদি যান, স্থির দাঁড়িয়ে থাকা সৌদি সেনা বহরের যানবাহনের ছবি দেখিয়ে হুতিরা বলেন, দক্ষিণ নাজরান অঞ্চলে গত তিন দিন ধরে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

তবে ইরানের প্রেস টিভি দাবি করেছে, হুতি বাহিনী যে ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেছে তাতে সৌদি আরবের কোন এলাকায় তারা অভিযান চালিয়েছে তার যেমন বর্ণনা রয়েছে তেমনি হুতি যোদ্ধারা সৌদি অবস্থানে যে সমস্ত গোলাবর্ষণ করছে তার দৃশ্যও রয়েছে।