নয় জুয়াড়ীর গ্রেপ্তারের খবর: দুই সম্পাদকসহ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলায় বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা ও প্রতিবাদ


প্রকাশিত : October 2, 2019 ||

পত্রদূত ডেস্ক: সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত দৈনিক পত্রদূত ও দৈনিক কালের চিত্র সম্পাদকসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে উদ্দেশ্য প্রণোদিত মামলা এবং সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্য সমাবেশ করে হুমকির প্রতিবাদ জানিয়েছে জেলার সংবাদিকতা সংশ্লিষ্ঠ বিভিন্ন সংগঠন। বিবৃতিতে হয়রানীকর মামলা প্রত্যাহার এবং সাংবাদিকদের নিরাপত্তার দাবী জানানো হয়েছে। উল্লেখ্য সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ হায়দার আলী তোতার বাড়িতে পুলিশের অভিযানে ৯ জুয়াড়ীকে নগদ টাকা ও জুয়ার সরঞ্জামসহ আটক করা হয়। উক্ত হায়দার আলী তোতা সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবির মামাতো ভাই। পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে আত্মিয়তার এই পরিচয় প্রকাশ করায় গত ২৯ সেপ্টেম্বর সাতক্ষীরা লাবনী সিনেমা হলের মোড়ে প্রকাশ্য সমাবেশ করে দুই পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিলের দাবীসহ হুমকি দেওয়া হয় এবং পরবর্তীতে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়।
তালা সদর প্রেসক্লাব: দুই পত্রিকার সম্পাদকসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলায় তালা সদর প্রেসক্লাবের সদস্যরা নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় তালা সদর প্রেসক্লাব আয়োজিত জরুরী বৈঠকে উপস্থিত সদস্যরা গভীর উদ্বেগের সাথে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। সাথে সাথে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাতক্ষীরার প্রকৃত সাংবাদিকদের হয়রানি বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যহার করার দাবি করেন। এসময় বক্তারা পুঁজিবাদি লোকেদের উদ্দেশ্য করে বলেন, সংবাদিক বা সংবাদপত্র কারো শত্রু না। সাংবাদিকরা সংবাদ প্রকাশ করবে এটাই তাদের কাজ। আপনারা যেটা করেছেন সাংবাদিকরা সেটাই প্রকাশ করেছে। তার জন্য সংবাদিকদের বিরুদ্ধে হামলা মামলা চালিয়ে তাদের সংবাদ প্রকাশের অধিকার হরণ করার চেষ্টা করবেন না। বরং আপনারা ভালো কাজ করেন, সংবাদিকরা আপনাদের ভালো কাজের চিত্র যেনো সমাজের মানুষের কাছে তুলে ধরতে পারে।
বিবৃতিদাতারা হলেন, তালা সদর প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল জব্বার, সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন, সাংগঠনিক ইলিয়াস হোসেন, সদস্য মামুন রেজা, উজ্জল হোসেন, মনিরুজ্জামন, অমল সেন, বিশ্ব নাথ গুহ প্রমুখ।
কুলিয়া আঞ্চলিক প্রেসক্লাব: মামলা দায়েরের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন কুলিয়া আঞ্চলিক প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ। সাংবাদিকদের কন্ঠরোধের জন্য দায়েরকৃত উক্ত মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন কুলিয়া আঞ্চলিক প্রেসক্লাবের সভাপতি ডা. অহিদুজ্জামান, সহ-সভাপতি আমিনুর রশীদ সুজন, সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক মুকুল, যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক বজলুর রহমান, অর্থ-সম্পাদক রমজান আলী মোড়ল, দপ্তর সম্পাদক আবীর হোসেন লিয়ন, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাদল, প্রচার সম্পাদক আক্তার হোসেন, সদস্য মজনুর রহমান, শাহিনুর ইসলাম ও রুহুল আমিন প্রমূখ।
কলারোয়া প্রেসক্লাবের নিন্দা: মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে কলারোয়া প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ। বুধবার বিকালে প্রেসক্লাবের এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ জানান ‘যে ঘটনাকে কেন্দ্র করে মামলা হয়েছে তা অনাকাক্সিক্ষত। সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের কন্ঠরোধ করার সকল অপপ্রয়াসের বিরুদ্ধে কলারোয়া প্রেসক্লাব সবসময় সোচ্চার।’ হয়রানীমূলক মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন বিভিন্ন সংবাদপত্রে নিয়োজিত কলারোয়া প্রেসক্লাবের সদস্যগণ। বিবৃতিদাতারা হলেন কলারোয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যাপক এমএ কালাম, সিনিয়র সহ.সভাপতি সহকারী অধ্যাপক কেএম আনিছুর রহমান, সহ.সভাপতি শেখ জাকির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শেখ মোসলেম আহম্মেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক আরিফ মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এমএ মাসুদ রানা, দপ্তর-প্রচার সম্পাদক সুজাউল হক, কোষাধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম মনি, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবু রায়হান মিকাঈল, নির্বাহী সদস্য গোলাম রহমান, আব্দুর রহমান, আনোয়ার হোসেন, সদস্য- তৌফিকুর রহমান ও সদস্য সরদার জিল্লুর রহমান।
কলারোয়া নিউজ’র উদ্বেগ: সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত দুইটি পত্রিকার সম্পাদক ও সাংবাদিকদের নামে ডিজিটাল আইনে মামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘কলারোয়া নিউজ’ পরিবার। বিবৃতিদাতারা হলেন ‘কলারোয়া নিউজ’র সম্পাদক প্রভাষক আরিফ মাহমুদ, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক শেখ জাকির হোসেন, আইন উপদেষ্টা এড. আবু জাহিদ, বার্তা সম্পাদক সুজাউল হক, সহ-সম্পাদক মিলন দত্ত, ইমানুর রহমান, আসাদুজ্জামান ফারুকী ও অমিত ভট্টাচার্য, আই.টি প্রতিবেদক ইঞ্জিনিয়ার মৃত্যুঞ্জয় বর্মণ, পৃষ্ঠপোষক মন্ডলীর সদস্য প্রভাষক শেখ মো.আলকামুন, কামরুল ইসলাম সাজু, মো. মঞ্জুরুজ্জামান, বিএম আফজাল হোসেন পলাশ, লক্ষ্মন বিশ্বাস ও খায়রুল আলম কাজল, প্রতিবেদক কেএম আনিছুর রহমান, শেখ আমিনুর হোসেন, জুলফিকার আলী, এমএ মাসুদ রানা, সরদার জিল্লুর রহমান, হাবিবুর রহমান রনি, গোপাল ঘোষ বাবু, শফিকুর রহমান, দেবাশীষ চক্রবর্তী বাবু, আদিত্য বিশ্বাস, সোহাগ খাঁন, সরদার কালাম, মাস্টার শেখ শাহজাহান আলী শাহীন, সাইফুল ইসলাম মিলন, এসএম ফারুক হোসেন, রুহুল আমীন, অনুপ ঘোষ প্রমুখ।
তালা প্রেসক্লাব: তালা প্রেসক্লাবের সভাপতি তালা সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সাংবাদিক এস এম নজরুল ইসলাম উল্লে¬খ করেছেন কিছু রাজনৈতিক নেতাদের ইচ্ছামত সাংবাদিকদের সংবাদ লিখতে হয়। তা না হলে প্রেসক্লাবের সদস্যদের মধ্যে বিভক্তি করা হয়। তালা প্রেসক্লাব বিশ্বাস করে আদালত থেকে অবশ্যই ন্যায় বিচার পাওয়া যাবে। তালা প্রেসক্লাবের পক্ষে বিবৃতিদাতারা হলেন তালা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শেখ জলিল আহমেদ, এসএম জাহাঙ্গীর হাসান, এমএ মান্নান, এসএম হাসান আলী বাচ্চু, মো. বাহারুল ইসলাম, এসএম আকরামুল ইসলাম, বিএম বাবলুর রহমান, কাজী জিবন, মো. বাবুলুর রহমান, মো. সেহাগ মোড়ল, মো. ফারুক হুসাইন, মো. রুহুল আমিন মোল্যা, মো. বাহারুল ইসলাম মোড়ল, মো. হাফিজুর রহমান, মো. নাজমুল হুসাইন, মো. ইমরান হোসেন, এড. কবির আহমেদ প্রমুখ।