দেবহাটায় বসতবাড়ির উপর দিয়ে লাইন টানতে বাঁধা দেওয়ায় ভাংচুর


প্রকাশিত : অক্টোবর ৩, ২০১৯ ||

দেবহাটা সংবাদদাতা: দেবহাটার নওয়াপাড়ায় বসতবাড়ির উপর দিয়ে বিদ্যুতের লাইনের তাঁর টানতে বাধা দেওয়ায় এক নারীকে পিটিয়ে জখম করার পাশাপশি বসতবাড়ির চাল ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে পল্লী বিদ্যুত সমিতির কর্মীদের বিরুদ্ধে। আহত নারীর স্বামী নাংলা গ্রামের আয়ুব আলী শেখ জানান, তার বসতবাড়ির পাশে থাকা বৈদ্যুতিক খুঁটি থেকে প্রতিবেশির সংযোগ লাইন ঘরের উপর দিয়ে না দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়ার কথা জানান স্ত্রী। এসময় বিদ্যুত অফিসের এক কর্মী তার স্ত্রীর সাথে বাকবিতন্ডে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে তার উপর কিল, লাথি, চড় মারতে থাকে ঐ বিদ্যুত অফিসের কর্মী। এসময় অপর এক কর্মী ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বসততবাড়ির ছাউনি সিমেন্ট শিট ভাংতে থাকে। আমি খবর পেয়ে বাড়িতে এসে স্ত্রীকে উদ্ধার করি। আমার বসতঘর ও গোয়ালের ছাউনি ভেঙে দিয়ে চলে যায় তারা।

এদিকে, প্রতিবেশি মোহাম্মাদ আলী গাজীর ছেলে ইসলাম গাজী(৪০)কে প্রধান আসামী, ইসলাম গাজীর ছেলে হযরত আলী(২০) এবং স্ত্রী ফতেমা খাতুন(৩৫)সহ অজ্ঞাত নামা পল্লী বিদ্যুতের লাইনম্যানকে আসামী করে আয়ুব আলী শেখের স্ত্রী সায়রা খাতুন বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানান।

বিষয়টি নিয়ে ইসমাইল গাজী জানান, আমার বাড়িতে বিদ্যুত সংযোগ আনার জন্য প্রতিবেশির সাথে বিদ্যুতের অফিসের লোকের কথা কাটাকাটি হয়েছে। আমরা তাদের সাথে কোন ঝামেলাই যায়নি। তবে আয়ুবের স্ত্রী বিদ্যুত অফিসের লোকের মোটরসাইকেলে আঘাত করলে লাইন লাগানো কর্মীরা মিটার খুলে নিয়ে যায় এবং তাদের বসতবাড়ি ভাংচুর করে।

দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার সাহা জানান, অভিযোগ এখনো হাতে পাইনি। অভিযোগ পেলেই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এবিষয়ে পল্লী বিদ্যুতের অফিসের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে কর্মরত কর্মকর্তা জানান, কোন কিছু জানার থাকলে অফিসে এসে কথা বলুন।