তালায় গৃহবধুকে ধর্ষণ চেষ্টা: লম্পটকে গণধোলাই


প্রকাশিত : অক্টোবর ৭, ২০১৯ ||

তালা প্রতিনিধি: তালায় রাতের আঁধারে এক সন্তানের জননী গৃহবধু (৩০)কে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। এসময় এলাকার মানুষ এগিয়ে এসে এক লম্পটকে হাতেনাতে ধরে গণধোলাই দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার রাত ১১টার দিকে উপজেলার সুজনশাহা গ্রামে।

গৃহবধুর স্বামী জানান, ১০বছরের এক কন্যা সন্তানের জননী তার স্ত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে পাশর্^বর্তী ঢ্যামসাখোলা গ্রামের মৃত নওশের সরদারের ছেলে ইলিয়াস সরদার (৩০) কু-প্রস্তাব দিচ্ছিল। কিন্তু তাতে আমার স্ত্রী রাজি না হয়ে বিষযটি আমাকেসহ পরিবারের লোকজনকে অবহিত করে। এতে ইলিয়াস ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন সময়ে আমাকেসহ আমার স্ত্রীকে নানাবিধ হুমকি দিতে থাকে।

গৃহবধুর স্বামী বলেন, রোববার রাতে আমি বাড়িতে না থাকার সুযোগে লম্পট ইলিয়াস তার সহযোগী ঢ্যামসাখোলা গ্রামের জোনাব আলী সরদারের ছেলে মকবুল সরদার (৪০)কে সাথে নিয়ে আমাদের বাড়িতে আসে। একপর্যায়ে তারা কৌশলে দরজা খুলে ঘরের ভিতরে ঢুকে আমার ঘুমন্ত স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় আমার স্ত্রী ও কন্যার ডাক চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে আসলে মকবুল দ্রুত পালিয়ে যায়। তবে ইলিয়াসকে ঘরের মধ্যে ধরে ক্ষুব্ধ লোকজন গণধোলাই দিয়ে আটকিয়ে রাখে। পরে গভীর রাতে ইলিয়াসের ভাই শাহিনুর ও অপর সহযোগী আমিনুর রহমান মোড়ল তাকে নিয়ে যায়। এদিকে, আমিনুরসহ একাধিক ব্যক্তি এই ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনাটি ধাঁমাচাঁপা দেবার জন্য তালা থানা পুলিশের নামে ইলিয়াসের পরিবারের কাছ থেকে ওই রাতেই ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। সোমবার সকালে এই প্রতারকরা ইলিয়াসকে সাতক্ষীরায় চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে ভুক্তভোগী গৃহবধুর স্বামীর কাছ থেকেও টাকা হাতিয়ে নেয়ার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এঘটনায় প্রতারক ও লম্পটদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এলাকাবাসী পুলিশ প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।