কলারোয়ায় এক অসহায় ব্যক্তির জমি দখলের চেষ্টা: জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা


প্রকাশিত : অক্টোবর ৯, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: জেলার কলারোয়ায় গরীব অসহায় এক নির্মাণ শ্রমিকের জমি দখলের চেষ্টা করছে প্রভাবশালী মহল। আদালতের নির্দেশ অমান্য করে গরীবের এক টুকরো জমি দখল নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ওই মহলটি। লোকজন ও দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ওই জমিতে আমের চারা রোপন করতে গিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শনের মাধ্যমে ত্রাস সৃষ্টি করেছে মহলটি। এতে জীবন ও সম্পদের চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন গরীব অসহায় কলারোয়া উপজেলার বামনখালি গ্রামের নূর আলী গাজীর ছেলে আজগর আলী (৪৩)। আদালতে মামলা করলে আদালতের রায় অমান্য করে আজগর আলীর জমি দখলের পায়তারা চালাচ্ছেন প্রভাবশালী নারায়নপুর গ্রামের আফছার সরদারের পুত্র তারেক আহমেদ এবং গোলাম হোসেনের পুত্র শামীম আহমেদগং।
বামনখালি গ্রামের নূর আলী গাজীর ছেলে আজগর আলী জানান, আমার মা রোকেয়া বেগমসহ ওয়ারেশগণ স্বরবানু ওরফে জেলেখা বিবিদের বিরুদ্ধে কলারোয়া উপজেলার বামনখালি মৌজার জেএল নং ৯৮ এর সিএস ১১১ নং খতিয়ানের ৪৪১ নং দাগের এক একর ৭৩ শতক জমি হতে উদ্ভূত ২৪৯ এসএ খতিয়ানে ওই প্লটের দক্ষিণ-পূর্ব কোণে ৪১ শতক জমির দক্ষিণে সাড়ে ২৯ শতক জমির দাবিতে সাতক্ষীরা যুগ্ম জেলা জজ আদালতে-১ এ দেওয়ানী ১২৮/১৮ নং মামলা করেন। ওই মামলার বিবাদী তারেক আহমেদ ও শামীম আহমেদ গত ২০-৫-২০১৯ তারিখে ১৪ নং আদেশে বাদীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পান। আদেশে বলা হয়, নালিশী তফসীল জমির বাইরে ৮ দশমিক ২৫ শতক ভূমি হতে বিবাদী তারেক আহমেদ ও শামীম আহমেদকে বিরক্তিকরণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। আদেশে সন্তুষ্টু না হওয়ায় পুনরায় ৩০ জুন তারিখে সুনির্দিষ্ট জমিতে নিষেধাজ্ঞার জন্য আরেকটি পিটিশন করেন। উক্ত পিটিশনটি বিজ্ঞ আদালত ২২ আগস্ট শুণানী শেষে খারিজ করেন।
এরপর বিবাদী তারেক আহমেদ ও শামীম আহমেদ উক্ত জমি জোরপূর্বক দখলের পায়তারা চালাচ্ছে। তারা জমিতে গাছের চারা রোপন করতে গেলে বাঁধা দেওয়ায় খুন-জখম ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানীর হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন আজগর আলী। বর্তমানে আজগর আলীর পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তিনি এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।