আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীর অত্যাচার থেকে রক্ষার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশিত : অক্টোবর ১৯, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী তালা উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান সরদার জাকিরের অত্যাচার থেকে রক্ষা পাওয়ার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন, তালা উপজেলার মুড়াকলিয়া গ্রামের আব্দুল গফুর সরদারের ছেলে মহসিন সরদার।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। আমার বাবা বর্তমান তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক। তিনি বার বার নির্বাচিত ইউপি সদস্য। বর্তমানে একই ওয়ার্ডে আমার বড় ভাই ইয়াসিন সরদার বিপুল ভোটে ইউপি সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী সরদার জাকির এক সময় বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। পরবর্তীতে যোগ দেন জাতীয় পার্টিতে। এরপর সুযোগ সন্ধানী সরদার জাকির আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে তালা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। চেয়ারম্যান হওয়ার পর আমার মাছের ঘেরের দিকে তার কু-নজর পড়ে। আমার ৭৫ বিঘা মাছের ঘের তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে দখল করে নেন। এরপর গত বুধবার রাতে আমার দখলে থাকা অবশিষ্ট ৫০ বিঘা মাছের ঘেরের বাঁধ কেঁটে তার মাছের ঘেরের মধ্যে মাছ ঢুকিয়ে নেন তিনি। মাছের ঘেরে থাকা ১ লাখ ৫১ হাজার ৭ শ’ গলদার পোনাসহ বিভিন্ন প্রজাতির শতশত মণ মাছ তার দখলে থাকা ঘেরের মধ্যে চলে যায়। ঘেরের বাঁধ কাটার কারণ জানতে চাওয়ায় গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আমার ছোট চাচা ওদুদ সরদারকে ধারালো দা দিয়ে কোপায় তার সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্য মুড়াকলিয়া এলাকার আব্দুল গণি মলঙ্গী, গফফার মলঙ্গী, বাবুল মলঙ্গীসহ কয়েকজন। বর্তমানে আমার চাচা সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এরপর শুক্রবার সন্ধ্যায় তেঁতুলিয়া বাজারের আলামিনের দোকান থাকাকালীন সময়ে আমার উপর হামলা চালান তিনি ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। ৩০-৪০টি মোটর সাইকেলে যোগে এসে বেধড়ক মারপিট শুরু করেন। এ সময় আমার ভাইকে উদ্দেশ্য করে তিনিসহ তার ভাই ফারুক ও জেয়ালার আসাদ নিকারী বলতে থাকেন ইয়াসিন মেম্বার কই, ওকে মেরে ফেলবো। এ ঘটনা জানার পর তালা থানার ওসির নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আমাকে উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় আমি তালা থানা পুলিশের কাছে অভিযোগ নিয়ে গেলে ওসি মেহেদী রাসেল জানান, তিনি কোন মামলা নিতে পারবেন না। অথচ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তালা থানার ওসি মেহেদী রাসেলের উপর প্রভাব খাঁটিয়ে সরদার জাকির উল্টো আমাকেসহ আমার ভাইদের নামে একটি মামলা দায়ের করেছেন। তিনি আরো বলেন, সরদার জাকিরের বিরুদ্ধে পুলিশের উপর হামলা, উপজেলা নির্বাচনের সময় দলীয় মনোনয়নকে কেন্দ্র করে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে তালা সদরে কয়েক ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখাসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। এমতাবস্থায় তিনি আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী সরদার জাকিরের হাত থেকে রক্ষা পেতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।