ভোমরা বন্দরের দুই ট্রাক পেঁয়াজ আত্মসাতের প্রতিবাদ করায় তদন্ত ছাড়াই মিথ্যা ছিনতাই মামলা রেকর্ড করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশিত : অক্টোবর ২৩, ২০১৯ ||

পত্রদূত রিপোর্ট: ভোমরা বন্দরের এক ব্যবসায়ীর দুই ট্রাক পেঁয়াজ আত্মসাতের প্রতিবাদ করায় জনৈক ফিরোজ কর্তৃক দায়ের করা মিথ্যা ছিনতাই মামলা তদন্ত ছাড়াই রেকর্ড করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বিকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন শহরের সুলতাপুর সাহাপাড়া এলাকার চিত্তরঞ্জন বিশ্বাসের ছেলে বিদ্যুৎ বিশ্বাস।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, সম্প্রতি ঘোনা শ্রীরেরডাঙ্গা এলাকার ব্যবসায়ি দিপংকর মন্ডল দিপু ২ ট্রাক ভারতীয় পেঁয়াজ ভোমরাবন্দর দিয়ে আমদানী করে ট্রান্সপোর্টের মাধ্যমে ঢাকা এবং কুমিল্লায় পৌছে দেওয়ার জন্য বুকিং দেয়। বুকিং দেওয়ার দুই দিনের মধ্যে ট্র্রাকদুটি যথাস্থানে পৌছানোর কথা থাকলেও তা যথাসময়ে না পৌছানোয় এ বিষয়ে ফিরোজের কাছে জানতে চাইলে সে দিপুকে বলে ‘মাল আমরা বিক্রয় করে নিয়েছি’। কেন নিয়েছো এমন প্রশ্নে ফিরোজ উত্তেজিত হয়ে ব্যবসায়ী আজহারুলের নেতৃত্বে দিপুকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে তাড়িয়ে দেয়। ব্যবসায়ী দিপুর ২২লক্ষাধিক টাকার পেঁয়াজ আত্মসাত করায় সে দিশেহারা হয়ে পড়ে। এঘটনায় সদর থানায় একটি মামলাও করে দিপু। এ ঘটনায় আমি দিপুর পক্ষে প্রতিবাদ করি এবং তার টাকা উদ্ধারে সহযোগিতা করি। এরফলে ফিরোজ আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করার জন্য গভীর ষড়যন্ত্র করতে থাকে। একপর্যায়ে ফিরোজ গত ২১ সেপ্টেম্বর ১০ লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করে। উক্ত মামলায় আমাকে ২নং আসামী করা হয়। অথচ যে তারিখে এ মামলা করা হয়েছে ওই দিন ও ওই সময়ে আমি ভোমরা এলাকায় যাইনি। আমি আমার সুলতানপুর সাহাপাড়ার বাড়িতে অসুস্থ্য অবস্থায় বিশ্রামে ছিলাম। অথচ উক্ত মামলাটি পুলিশ কোন প্রকার তদন্ত ছাড়াই কিভাবে রেকর্ড করলো তা নিয়ে সাতক্ষীরা সচেতন মহলের মধ্যে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।

মামলা থেকে অব্যাহতিসহ এর সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।