মুজিব বর্ষ ও স্বাধীনতার রজত জয়ন্তী বর্ষকে সামনে রেখে জেলার স্কুলে স্কুলে সাংস্কৃতিক উৎসব


প্রকাশিত : অক্টোবর ২৮, ২০১৯ ||

রফিকুল ইসলাম রফিক: মুজিব বর্ষ ও স্বাধীনতার রজত জয়ন্তী বর্ষকে সামনে রেখে জেলার স্কুলে স্কুলে শুরু হয়েছে সাংস্কৃতিক উৎসব। শুধু স্কুলে নয়, মাদ্রাসা ও কলেজেও এ উৎসবের ঢেউ লেগেছে। ইতোমধ্যে জেলার ৭টি উপজেলার প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিÿা প্রতিষ্ঠানে মহান মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনাকে ধারণ করে শিÿার্থীদের সৃজনশীল, দেশ প্রেমিক, সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার লÿ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শিÿার্থীর সুপ্ত প্রতিভার সর্বোত্তম বিকাশ ঘটিয়ে তাদেরকে মানব সম্পদে পরিণত করার লÿ্যে এ সব কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে জেলার প্রত্যেকটি শিÿা প্রতিষ্ঠানে বিজয় ফুল উৎসব পালিত হয়েছে। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গল্প রচনা, কবিতা লেখা ও আবৃত্তি, চিত্রাঙ্কন, একক অভিনয়, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক তিন মিনিটের শট চলচ্চিত্র নির্মাণ, দেশাত্মবোধক ও জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতাও কর্মসূচির আওতায় পালিত হচ্ছে। মুজিব বর্ষ ও স্বাধীনতার রজত জয়ন্তী বর্ষকে সামনে রেখে ‘ক্লিন সাতÿীরা গ্রিন সাতÿীরা’ ঘোষণা করা হয়েছে। এ কর্মসূচিতে শিÿক ও শিÿার্থীরা স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণ করেন। জেলা প্রশাসক এসএম মো¯Íফা কামালের ঘোষিত সকল কর্মসূচি বা¯Íবায়নের সৈনিক হিসেবে শিÿক ও শিÿার্থীরা ইতোমধ্যে ডেঙ্গু নির্মূলে কার্যকরী ভূমিকা রেখেছে। ‘ক্লিন সাতÿীরা গ্রিন সাতÿীরা’ বা¯Íবায়নে প্রধান অন্তরায় দুর্নীতি। সেই দুর্নীতির বিষবৃÿের মূলে কুঠারাঘাত করে তা সমূলে বিনাশ করতে জেলার প্রত্যেকটি শিÿা প্রতিষ্ঠানে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা। জেলার অনেক শিÿা প্রতিষ্ঠানে সততা স্টোর প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।
এদিকে সোমবার জেলার প্রত্যেকটি শিÿা প্রতিষ্ঠানে বিজয় ফুল উৎসব পালিত হয়েছে। বিজয়ের প্রতীক শাপলা ফুল তৈরির মধ্য দিয়ে শিÿার্থীরা ছড়িয়েছে ‘একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনা’। মুক্তিযুদ্ধের উপর স্ব-রচিত গল্প রচনা ও কবিতা রচনার মধ্য দিয়ে শিÿার্থীরা সৃজনশীল লেখক হিসেবে গড়ে ওঠার হাতেখড়ি নিয়েছে। আবৃত্তি ও অভিনয়ের মাধ্যমে একজন শিল্পী হিসেবে তৈরি করার সুযোগ পেয়েছে কোমলমতি শিÿার্থীরা। এর আগে সপ্তম শ্রেণির শিÿার্থীরা বাংলা বিষয়ের উপর ১০ নম্বরের জন্য মুক্তিযোদ্ধা, প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার স্বজন ও মুক্তিযুদ্ধের প্রত্যÿদর্শীর সাÿাৎকার গ্রহণের মধ্য দিয়ে আমাদের গৌরবের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে জ্ঞানার্জনের সুযোগ পেয়েছে। ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধকে জানি’, ‘বাংলাদেশকে জানি, শেখ মুজিবকে চিনি’ বিষয়ে কুইজ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শিÿার্থীরা খুঁজে পেয়েছে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের গৌরবগাঁথা ইতিহাসের অনেক জানা অজানা তথ্য।
সোমবার সাতÿীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, সাতÿীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, পুলিশ লাইন্স মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু পেশাভিত্তিক মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পলাশপোল হাইস্কুল, পলাশপোল প্রাইমারি স্কুল, ব্রহ্মরাজপুর ডিবি গার্লস হাইস্কুল, মাছখোলা হাইস্কুল, ঘোনা হাইস্কুল, গাভা প্রাইমারি স্কুল, গোবদাড়ি জোড়দিয়া স্কুল এন্ড কলেজ, মাহমুদপুর হাইস্কুল, ফিংড়ির মির্জাপুর প্রাইমারি স্কুল, তুজুলপুর হাইস্কুলসহ জেলার বিভিন্ন স্কুলে পালিত হয়েছে বিজয় ফুল উৎসব।