খুলনায় সাত শ্রেষ্ঠ জয়িতাকে সম্মাননা প্রদান


প্রকাশিত : অক্টোবর ৩১, ২০১৯ ||

খুলনায় আজ সাত শ্রেষ্ঠ জয়িতাকে সম্মাননা দেওয়া হয়। জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের খুলনা সিটি কর্পোরেশন এবং জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান (বৃহস্পতিবার) দুপুরে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। খুলনা জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
২০১৮-১৯ অর্থ বছরে খুলনা জেলা পর্যায়ে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত হলেন- অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী ক্যাটাগরিতে জাহানারা বেগম, শিক্ষা ও চাকুরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারীতে সৈয়দা নাহিদা হাবিবা, সফল জননী ক্যাটাগরিতে রোকেয়া বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরুতে স্মৃতি বিশ^াস এবং সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখেছেন যে নারী ক্যাটাগরিতে সন্ধ্যা রাণী বিশ^াস। এছাড়া ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত হয়েছেন- অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী সাবেরা মারজানা এবং সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদানের জন্য সন্ধ্যা রাণী বিশ^াস।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, তৃণমূল থেকে নারীদের উৎসাহ দিতে সরকার জয়িতা কার্যক্রম চালু করছে। জয়িতাদের অবদান সমাজে ছড়িয়ে দিতে পারলে নারীরা আরো উৎসাহিত হবেন। সরকার নারীদের সকল ক্ষেত্রে অধিকার দিয়েছে। নারী শিক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন ও উন্নয়নের ভিত রচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নারীদের অধিকার নারীদেরকেই আদায় করে নিতে হবে। সরকার নারী সমাজকে দেশের সকল কাজে সম্পৃক্ত করে যাচ্ছেন। পুরুষের পাশাপাশি নারীরা আজ মাথা উচু করে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, তৃণমূল থেকে উঠে আসা খুলনার পাঁচ হাজার নারীকে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ দিয়ে স্বাবলম্বী করা হবে।
খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা পরিষদের প্রদান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আছাদুজ্জামান এবং জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক ইশরাত জাহান। স্বাগত জানান মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক নার্গিস ফাতেমা জামিন। তথ্য বিবরণী