ইডেনের গোলাপি উৎসবে থাকবেন হাসিনা-মমতা


প্রকাশিত : নভেম্বর ২, ২০১৯ ||
অনলাইন ডেস্ক: ভারত সফরে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সেখানে প্রথমবার খেলবে টি-টোয়েন্টি আর টেস্ট সিরিজ। তবে রূঢ় সত্যি যে, এই দুই ফরমেটে ভারতের বিপক্ষে টাইগারদের জয় অধরা। এবার অবশ্য প্রত্যাশা ছিল ভিন্ন। কিন্তু সিরিজ শুরুর আগেই ঝড় এসে সব এলোমেলো। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ। দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল দলে নেই পারিবারিক কারণে। টি-টোয়েন্টির নেতৃত্বে অভিজ্ঞ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ থাকলেও টেস্টের দায়িত্ব সামলাবেন একেবারেই নয়া অধিনায়ক মুমিনুল হক সৌরভ। দুই দলের শক্তির যে পার্থক্য- বলার অপেক্ষা রাখে না কতটা কঠিন হবে তাদের পথ চলা।

তবে একটি জায়গায় ভারত বাংলাদেশ এই সিরিজে থাকবে সমানে সমান। এবারই প্রথম দুই দল খেলবে রাতের আলোয় গোলাপি বলে টেস্ট ম্যাচ। হ্যাঁ, রীতিমতো ইতিহাস রচিত হবে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে। যার জন্য প্রস্তুতিটাও বড়সর। ২২শে নভেম্বর মাঠের খেলার আগেই ইডেনে যেন সবার দৃষ্টি। থাকবে না কেন, ভারত ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) নয়া সভাপতি আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। ক্রিকেট পাগল এই রাষ্ট্র প্রধানও তাতে রাজি। ম্যাচের একদিন আগেই থাকবেন কলকাতায়। শুধু কি তাই? গোলাপি আলোর উৎসবে থাকবেন পঞ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধোপাধ্যায়ও। জানা গেছে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের (সিবিএ) পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। তবে তিনি আসবেন কিনা তা নিশ্চিত নয়।

ইডেনে ঐতিহাসিক টেস্টে টস হতে পারে স্বর্ণের কয়েনে! আর সিরিজে গোলাপি বলের টেস্ট যেন রংই ঢেলে দিয়েছে দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। তাই আরো একটি ইতিহাসের স্বাক্ষী হতে যাওয়া ইডেন গার্ডেন স্টেডিয়ামে বর্ণিল আলোয় সাজানোর আয়োজনের কাজ করছে সিবিএ। শুরুটা হয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে নিমন্ত্রণের মাধ্যমে। ঘণ্টা বাজিয়ে টেস্টের উদ্বোধন করবেন তিনি। বলা যায়, ম্যাচের টিকিট হবে সোনার হরিণ। তাই এমন টিকিটকেও সাজানো হচ্ছে গোলাপি আভায়। হ্যা, যারা টিকিট কিনবেন ভুলেও ফেলে দিবেন না। ইতিহাস হিসেবে সাজিয়ে রাখতে পারেন নিজের শোকেসে। কেমন হবে সেই টিকিট? গোটা টিকিটেই থাকবে গোলাপি আভা। থাকবে ইডেন গার্ডেন স্টেডিয়াম ও গোলাপি সেই বল।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নয়া প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী ইডেন টেস্টের জন্য মুখিয়ে আছেন। তিনি বলেছেন, ‘বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর ২৩শে অক্টোবর রাত থেকে আমি এই চেষ্টা শুরু করেছিলাম। অবশেষে সত্যি হলো। এটা টেস্ট ক্রিকেটের জন্য দারুণ একটা মুহূর্ত। আশা করছি, এই দিন-রাতের টেস্ট মাঠে আবার লোক ফিরিয়ে আনবে। টেস্ট ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এই সিদ্ধান্তটা খুব দরকার ছিল।’

এ সবের বাইরেও থাকবে আরো অনেক কিছু। যেমন খেলা শুরুর আগে ইডেনের আকাশ থেকে প্যারাস্যুটে নেমে আসবেন আর্মির প্রশিক্ষিত সদস্যরা। তাদের হাতেই থাকবে ট্রফি। আবার এমনও হতে পারে আকাশে হেলিকপ্টার থেকে ছড়িয়ে দেয়া হবে গোলাপি রংয়ের আভা। জানা গেছে গোটা গ্যালারি লেজার আলোর মাধ্যমে গোলাপি করে তোলা হতে পারে। কত যে আয়োজন করছে সিবিএ। তার মধ্যে থাকবে দুই বাংলার সম্মিলিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

জানা গেছে বাংলাদেশের শীর্ষ কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লাকে আমন্ত্রণ জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আয়োজকরা। রাতের মায়াবী আলোয় রুণার সঙ্গে উৎসব মাতাতে সুর মেলাবেন ভারতের ঊষা উত্থুপের মতো তারকারাও। সংবর্ধনা জানানো হতে পারে সৌরভ গাঙ্গুলী ও বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়কে।

মাত্র ৪ বছর হলো শুরু হয়েছে দিবা-রাত্রির টেস্ট। এরই মধ্যে নতুন স্বাদের এই টেস্টের অভিজ্ঞতা নিয়েছে সব দল। শুধু ভারত আর বাংলাদেশ ছাড়া। তাই দুই দলের জন্য দারুণ এক চ্যালেঞ্জ। এ নিয়ে টাইগারদের ১১তম টেস্ট অধিনায়ক মুুমিনুল হক উচ্ছ্বসিত। তিনি বলেন, ‘টেস্ট নেতৃত্ব পাবো যেমন ভাবিনি, তেমনি গোলাপি বলে রাতের আলোয় টেস্ট খেলবো সেটাও ভাবনাতে ছিল না। তবে আমি চ্যালেঞ্জ নিতেই পছন্দ করি। আমার ওপর যে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সেটা ভালোভাবে পালন করতে পারি তার জন্য নিজেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করাটাই আসল। তেমনি গোলাপি বলে খেলাটাও মানসিকভাবে প্রস্তুত হওয়ার বিষয়। আশা করি সব ভালোই হবে।’