তালায় পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে বেধড়ক মারপিট ও হুমকি দেয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশিত : নভেম্বর ৫, ২০১৯ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: তালায় পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে ষাটোর্দ্ধ কবিরাজকে ঘরে আটকিয়ে বেধড়ক মারপিট, খুন জখমের হুমকি দিয়ে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেওয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন উপজেলার শাহাপুর গ্রামের মৃত নেছার আলী মোড়লের ছেলে জিল্লুর রহমান। এ সময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার ছেলে আল মামুন।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে অত্যন্ত সুনামের সাথে কবিরাজি করে আসছেন। আর এ কাজের জন্য তাকে জেলার বিভিন্ন স্থানে যেতে হয়। গত ১৬-১০-২০১৯ তারিখে একজন মহিলা তদবির নেয়ার জন্য তাকে ফোন করে বলেন, পাটকেলঘাটা পেট্রোল পাম্পের সামনে আসার জন্য। তিনি সরল বিশ্বাসে সেখানে পৌছালে পিছন দিক থেকে শাহাপুর গ্রামের শফিউদ্দীন মাস্টারের পুত্র পুলিশ কনস্টেবল আরাফাত হোসেন তাকে জাপটে ধরে তার মোবাইল ফোনটি কেড়ে নিয়ে বলেন, কোন কথা বললে তাকে খুন করে ফেলবেন বলে হুমকি প্রদর্শন করেন এবং তাকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে তালা উপজেলার সাতরখি এলাকার মোনতাজ উদ্দীন সরদারের বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে একটি ঘরে তাকে আটকে রেখে লাথি, কিল ঘুষি ও দুই পা দিয়ে পিষে হত্যার চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে একটি সাদা স্ট্যাম্পে তাকে স্বাক্ষর করতে বলেন, স্বাক্ষর না করলে হত্যার হুমকি দেন পুলিশ কনস্টেবল আরাফাত। জীবনের ভয়ে তিনি কোন উপায় না পেয়ে এতে স্বাক্ষর করতে বাধ্য হন। এছাড়া তার কাছে থাকা ২১ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নেন। এরপর ওই পুলিশ কনস্টেবল তাকে বাড়ি পৌছে দিয়ে ওই স্ট্যাম্পটি হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে তার কাছে ৫ লক্ষ টাকা পাবেন বলে জানান। অথচ ওই পুলিশ কনস্টেবলের সাথে তার কোন লেনদেনই কোন সময় হয়নি। বর্তমানে পুলিশ কনস্টেবল আরাফাত কৌশলে তার জমি দখল করে নেওয়ারও হুমকি প্রদর্শন করছেন। এঘটনায় তিনি তালা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

তিনি আরো বলেন, আরাফাত খুলনায় পুলিশ কনস্টেবল পদে কর্মরত থাকা অবস্থায় প্রভাব খাটিয়ে তার সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন। ছুটি নিয়ে বাড়িতে এসে তিনি তাকে জিম্মি করে এধরনের অপকর্ম করছেন বলে তিনি আরো জানান। তিনি আশংকা করছেন তার স্বাক্ষরকৃত ওই সাদা স্ট্যাম্প ব্যবহার করে পুলিশ কনস্টেবল আরাফাত তাকে যে কোন ধরনের ব্লাক মেইলিং করতে পারেন। এমতাবস্থায় তিনি (জিল্লুর) ওই পরসম্পদ লোভী পুলিশ কনস্টেবল আরাফাত কর্তৃক তার মত একজন বয়োবৃদ্ধকে মারপিটের ঘটনার প্রতিবাদসহ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সাতক্ষীরার পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।