শ্যামনগরে পত্রদূত ‘হট কেক’, প্রতি কপি দশ টাকায় বিক্রি, থানায় জিডি

পত্রদূত ডেস্ক: বৃহস্পতিবার শ্যামনগরে দৈনিক পত্রদূত পত্রিকা ছিল ‘হট কেক’। উপজেলাজুড়ে পত্রিকাটির এতই চাহিদা ছিল যে, প্রতি কপি বিক্রি হয়েছে দশ টাকায়। অল্প সময়ের মধ্যে পত্রিকার সবগুলো কপি শেষ হওয়াতে শেষ পর্যন্ত উৎসাহী পাঠকের অনেকে পত্রিকাটির ফটোকপি সংগ্রহ করেন।

শ্যামনগর সদর ইউনিয়নের প্রভাবশালী নারী ইউপি সদস্য দেলোয়ারা বেগমের পুত্র বহু অপকর্মের হোতা মারুফ হোসেন মিলনকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশের ঘটনায় পত্রিকাটির এমন চাহিদা সৃষ্টি হয় বলে স্থানীয় পরিবেশকগণ জানিয়েছে।

আলোচিত এ মারুফ হোসেন মিলন ইতোপূর্বে স্টুডেন্ট সলিডারিটি টিম, ইয়ুথ ফোরামসহ বিভিন্ন এনজিও’র সাথে কাজ করেছেন। বর্তমানে বারসিক নামীয় প্রতিষ্ঠিত একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ পদে কাজ করেন।

এদিকে ঘটনার শিকার গৃহবধু আগের রাতে তার বাড়িতে ঢুকে কু-প্রস্তাব দেয়ার ঘটনায় মিলনের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার শ্যামনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। যার নং ৩৪৩।

সাধারণ স্থানীয় পাঠক এবং প্রতিনিধিদের সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের সদস্য দেলোয়ারা বেগমের ছেলে মারুফ হোসেন মিলনকে গণধোলাই নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়। পূর্ব পরিচয়ের সুত্র ধরে আটুলিয়া গ্রামের এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে প্রবেশ করে তার স্ত্রীকে কু-প্রস্তাব দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র স্থানীয়রা আটক করে তাকে ওই গণধোলাই দেয়। এক পর্যায়ে শ্যামনগর থেকে মিলনের অভিভাবকসহ বিশিষ্টজনেরা ঘটনাস্থলে যেয়ে রাত ৯টার দিকে তাকে জনরোষ থেকে উদ্ধার করে। এসময় জনরোষ থেকে বাঁচাতে মিলনকে তার অভিভাবকগণ প্রকাশ্যে জুতাপেটা করে-এমন কাজ আর করবে না মর্মে প্রতিশ্রুতি আদায় করে।

জানা গেছে, দৈনিক পত্রদূত ছাড়া সাতক্ষীরা, যশোর কিংবা খুলনার অন্য কোন পত্রিকাসহ অনলাইন নিউজ পোর্টালে পর্যন্ত সংবাদটি জায়গা না পাওয়াতে পাঠকরা দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়েন।

এদিকে ঘটনার শিকার গৃহবধুর স্বামী ব্যবসায়ী স্থানীয় সংবাদকর্মীদের কাছে জানিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয়ের সূত্র ধরে মিলনের সাথে তার স্ত্রীর পরিচয় হয়। একপর্যায়ে তার অনুপস্থিতিতে মিলন তার বাড়িতে যাতায়াত শুরু করে এবং তার দুই সন্তানের জননীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনসহ সম্ভ্রমহানীর চেষ্টা করে। ইতোপুর্বে একই ধরনের ঘটনা দুই বার ঘটিয়ে স্থানীয়দের হাতে উপুর্যপোরী গণধোলাইয়ের শিকার হয় আলোচিত মিলন।

ওই ব্যবসায়ী আরও অভিযোগ করে জানিয়েছেন, তার অবর্তমানে শ্যামনগর থেকে তার আটুলিয়ার বাড়িতে যেয়ে স্ত্রীকে ফুঁসলিয়ে মিলন কয়েক লাখ টাকার সোনার গহনা হাতিয়ে নিয়ে পরবর্তীতে সে গহনা বিক্রির টাকায় ডিসকভার মটরসাইকেল ক্রয় করে।

স্থানীয় নির্ভরযোগ্য একাধিক সুত্র জানিয়েছে, মারুফ হোসেন মিলনের বিরুদ্ধে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজিসহ ব্যাংকের সিনিয়র অফিসারকে লাঞ্ছিত করার মতো অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু তার মা সদর ইউনিয়নের প্রভাবশালী ইউপি সদস্য হওয়ায় কেউ তার বিরুদ্ধে টু-শব্দটি পর্যন্ত করতে সাহস দেখায় না। তাছাড়া সদরের একটি প্রভাবশালী মহলের সার্বক্ষণিক ছত্রছায়ায় থাকায় মারুফ হোসেন মিলন কোন কিছুর পরোয়া করেন না বলেও স্থানীয়দের অভিযোগ।

এদিকে নিজের প্রতিষ্ঠানের একজন স্টাফের এমন অনৈতিক কর্মকান্ডের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে বারসিকের নির্বাহী পরিচালক সুকান্ত সেন জানান, ইাের্বে তার বিষয়ে কেউ আমাকে কিছুই জানায়নি। তবে আপনার নিকট থেকে বিষয়টি জানতে পেরেছি, এখন খোঁজ নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নিব।

 

বাদল, খোকা ও আশরাফুল হকের মৃত্যুতে জেলা জাসদের শোক

জাসদ নেতা মুক্তিযোদ্ধা মঈন উদ্দিন খান বাদল এমপি, মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা এবং সাতক্ষীরা পৌরসভার সাবেক মেয়র শেখ আশরাফুল হকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে সাতক্ষীরা জেলা জাসদ নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে জাসদ নেতারা মৃতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন। বিবৃতিদাতারা হলেন জেলা জাসদের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী রিয়াজ, কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক শেখ ওবায়েদুস সুলতান বাবলু, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন লস্কর শেলী, জাতীয় কৃষক জোটের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহী, জেলা জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফ কামাল, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আমির হোসেন খান চৌধুরী, তালা উপজেলা জাসদের সভাপতি বিশ^াস আবুল কাশেম, সাধারণ সম্পাদক মোল্লা আবদুর রাজ্জাক, কলারোয়া উপজেলা জাসদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মো. আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক আবদুর রাজ্জাক, দেবহাটা উপজেলা জাসদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হামিদ, সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আবদুল ওহাব, কালিগঞ্জ উপজেলা জাসদের সভাপতি শেখ মোদাচ্ছের হোসেন জান্টু, সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক, শ্যামনগর উপজেলা জাসদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা হারুন-অর-রশিদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান তালেব, আশাশুনি উপজেলা জাসদের আহবায়ক সুরাত উজ্জামান, সদস্য সচিব সহিদুজ্জামান রুবেল, জাতীয় নারী জোট সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি পাপিয়া আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস বীনা, জেলা যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক মিলন ঘোষাল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ) সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি অনুপম কুমার অনুপ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এসএম আবদুল আলিম প্রমুখ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি

কলারোয়ার যুগিখালীতে ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটির ওরিয়েন্টশন

নিজস্ব প্রতিনিধি: কলারোয়ায় পিপিজে-সাতক্ষীরা প্রকল্পের আওতায় যুগিখালী ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটির সদস্যদের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় যুগিখালী ইউনিয়ন পরিষদ হল রুমে জেলা আইন সহায়তা কমিটি ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা উইমেন জব ক্রিয়েশন সেন্টার যৌথভাবে এ ওরিয়েন্টশন সভার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যুগিখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও লিগ্যাল এইড কমিটির সভাপতি রবিউল হাসান। ওরিয়েন্টশনে সরকারের আইনগত সহায়তা প্রদান আইন-২০০০ এবং লিগ্যাল এইডের কার্যক্রম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন উইমেন জব ক্রিয়েশন সেন্টারের পিপিজে-সাতক্ষীরা প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার মোস্তাক আহমেদ। এসময় তিনি জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটির দায়িত্ব, কারা সরকারি আইনগত সহায়তা পাবে, কি ধরনের সহায়তা পাবে এবং ইউএসএআইডি’র প্রমোটিং পিস এন্ড জাস্টিস (পিপিজে) এ্যাকটিভিটি’র কার্যক্রম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন। ওরিয়েন্টেশনে তিনি সরকারের বিনা খরচে আইনগত সহায়তা (লিগ্যাল এইড) কার্যক্রম সম্পর্কে ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের মাঝে প্রচার করার অনুরোধ জানান। পরে তিনি উপস্থিত সদস্যদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। ওরিয়েন্টেমনে উপস্থিত ছিলেন, ইউনিয়নের সচিব ও কমিটির সদস্য সচিব জাহাঙ্গীর হোসেন, ইউপি সদস্য বিউটি ইয়াছমিন, সাজেদা বেগম, মাছুরা বেগম, আব্দুল জলিল, আবু বক্কর সিদ্দিক, খোরশেদ আলম, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা তুষার কান্তি, ইউনিয়ন প. প. কর্মকর্তা ফাতেমাতুজ জোহরা, শিক্ষিকা জাহানারা বেগম, আনসার ভিডিপির ইউনিয়ন কমান্ডার সুপিয়া বেগম, ব্যবসায়ী মশিউর রহমান, কমিটির সদস্য নাছরিন নাহার ও দ্বিপালী ঘোষসহ কমিটির সদস্যবৃন্দ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি

তালার সরুলিয়ায় ফুটবল টুর্নামেন্টে কলারোয়াকে হারিয়ে পাইকগাছা সেমিতে

নিজস্ব প্রতিনিধি: তালা উপজেলার সরুলিয়ায় বার্ষিক ফুটবল টুর্নামেন্টের ৩য় খেলায় কলারোয়া ফুটবল একাডেমিকে ১-০ গোলে হারিয়ে পাইকগাছার দেবাশীষ ফুটবল একাডেমি জয়লাভ করেছে। বৃহস্পতিবার বিকালে সরুলিয়া যুব সংঘ আয়োজিত স্থানীয় ফুটবল মাঠে ৮দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের এ খেলায় কলারোয়াকে হারিয়ে পাইকগাছা সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে। খেলার প্রথমার্ধে আক্রমন-পাল্টা আক্রমনের মধ্যে কোন দলই গোল করতে পারেনি। বিরতীর পর দ্বিতীয়ার্ধের ৪মিনিটে পাইকগাছার ১১নম্বর জার্সিধারী খেলোয়াড় বিজয়সূচক একমাত্র গোলটি করেন। খেলাটি পরিচালনা করেন জাফরুন খান চৌধুরী শামু। সহকারি রেফারি ছিলেন সঞ্জয় বিশ্বাস ও রাজু আহমেদ। ধারাবিবরণীতে ছিলেন রুস্তম আলী, আব্দুল কুদ্দুস ও জাকির হোসেন। বিপুল সংখ্যাক দর্শকের পাশাপাশি খেলাটি উপভোগ করেন কলারোয়া নিউজের ক্রীড়া রিপোর্টার হাবিবুর রহমান রনি, ক্রীড়া সংগঠক মুজিবুল হক পুলিশ, রুহুল আমিন, অপু, মোখলেছ, আশরাফুর, রুহুল আমিন, সাজু হালদার, বাবু, কবির, বেনাপোলের সীমান্ত প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক প্রমুখ। আগামি ১০নভেম্বর রবিবার সাতক্ষীরার লাবসা ফুটবল একাদশ ও তালা ফুটবল একাদশ পরস্পর মুখোমুখি হবে বলে আয়োজক কমিটি জানায়।

জনসচেতনতা বাড়াতে কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের মাঠ মহড়া

কৈখালী (শ্যামনগর) প্রতিনিধি: সচেতনতা, প্রস্তুতি ও প্রশিক্ষণ দুর্যোগ মোকাবেলার সর্বোত্তম উপায়-এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কালিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের মাধ্যমে কালিগঞ্জ এবং শ্যামনগর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে জনসচেতনতা বাড়াতে মাঠ মহড়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত ৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে কালিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. আতিয়ার রহমানের নেতৃত্বে কয়েকজন চৌকস ফায়ার সার্ভিস সদস্যের মাধ্যমে কালিগঞ্জ, শ্যামনগর, বংশীপুর, ভেটখালী, হরিনগর, নওয়াবেকী, মুন্সিগঞ্জসহ বহু জায়গায় সাধারণ জনগণের কাছে বিভিন্ন সতর্কতামূলক বাণী পৌঁছে দেওয়া হয় এবং বিভিন্ন দুর্যোগ ও অগ্নিকা- বিষয়ে সকলকে কালিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসকে অবগত করে তাদের সার্বিক সহযোগিতা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করেন। জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে এবং বিভিন্ন দুর্যোগ মোকাবেলার কৌশল সম্পর্কে সকলকে অবগত করার জন্য লিফলেট বিতরণ ও জরুরী যোগাযোগ করার জন্য কালিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের জরুরী ফোন নাম্বার প্রদান করা হয়।

এ বিষয়ে কালিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. আতিয়ার রহমান দৈনিক পত্রদূতকে বলেন, সচেতনতা, সাবধানতাসহ সকলকে বিভিন্ন রকম দুর্যোগ মোকাবেলা অবলম্বনের জন্য আমরা বিভিন্ন স্থানে সাধারণ জনগণের মাঝে মাইকিং এবং লিফলেট বিতরণ করে সতর্ককতা বাণী পৌঁছে দিচ্ছি।

 

দেবহাটার গোল্ডেন কেবলের ডিশ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও মালামাল লুট

দেবহাটা ব্যুরো: দেবহাটার গোল্ডেন কেবল টিভি নেটওয়ার্কের বিভিন্ন এলাকার ডিশ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও কর্মীদের মারপিটসহ ফাইবার অপটিক্যালসহ অন্যান্য মূল্যবান মালামাল লুট করে সীমাহীন হয়রানী করছে প্রতিপক্ষের লোকজন। দেবহাটার গোল্ডেন কেবল ও ফিড অপারেটরদের বৈধ লাইসেন্সসহ অন্যান্য কাগজপত্র থাকা স্বত্ত্বেও বিগত দুই মাস ধরে প্রতিপক্ষরা গোল্ডেন কেবলের কর্মীদের মারপিট করে সংযোগ স্থাপনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি, ডিশ সংযোগ বিচ্ছিন্ন, মূল্যবান ফাইবার অপটিক্যালসহ অন্যান্য মালামাল লুট করে চলেছে। এমনকি গোল্ডেন কেবলের পরিচালক শেখ আশফাকুল ইসলাম মুন্নাসহ তাদের কর্মীদের প্রাণনাশের হুমকিও দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মির্জা সালাহউদ্দীনকে জানানো হলে এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে গোল্ডেন কেবলের পরিচালক শেখ আশফাকুল ইসলাম মুন্নাকে আশ্বস্থ করেন বলে জানান।

আশাশুনির দু’ইউনিয়নে অসহায়দের মাঝে ছাগল-ভেড়া ও সবজি বীজ বিতরণ

আশাশুনি ব্যুরো: আশাশুনির প্রতাপনগর ও আনুলিয়ায় দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে ছাগল-ভেড়া ও সবজি বীজ বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে আনুলিয়ায় লুক্সেমবার্গের সহযোগিতায়, ফ্রেন্ডশিপের বাস্তবায়নে ও ট্রান্সিশন ফান্ড প্রজেক্টের সহযোগিতায় গবাদি পশু ছাগল-ভেড়া ও সবজি বীজ বিতরণ করেন আনুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটন। ফ্রেন্ডশিপ রথ সাউথ প্রকল্পের সিআইডিআরআর সাতক্ষীরা আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মিজানুর রহমানের সার্বিক পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন উপ-সহকারি প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা এসএম তোফায়েল আহম্মেদ, ফ্রেন্ডশিপের প্রজেক্ট ইনচার্জ দিবাকর বিশ্বাস, সিনিয়র এফএফ আব্দুল মান্নান ও আসাদুল হাসানসহ স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। গত বৃহস্পতিবার অনুরুপভাবে প্রতাপনগরে ইউপি চেয়ারম্যান প্রধান অতিথি হিসেবে ছাগল-ভেড়া ও সবজি বীজ বিতরণ করেন। দু’দিনে দু’ইউনিয়নে ১৮০টি ছাগল-ভেড়া ও স্ব-স্ব এলাকায় তালিকাভূক্ত উপকার ভোগী অসহায় পরিবারের মাঝে সবজি বীজ বিতরণ করা হয়।

তালায় খুলনা কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে বজ্র নিরোধক তাল বীজ বপন

পত্রদূত রিপোর্ট: ৭ নভেম্বর বিকালে গোপালগঞ্জ জেলায় বিএআরআই এর কৃষি গবেষণা কেন্দ্র স্থাপন ও দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের পরিবেশ-প্রতিবেশ উপযোগী গবেষণা কার্যক্রম জোরদারকরণের মাধ্যমে কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, খুলনার আয়োজনে জেলার তালা উপজেলার বিনেরপোতা-হরিণখোলা মাঠে রাস্তার দু’পাশে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী ৫০০ তাল বীজ বপন করা হয়। তাল বীজ বপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, খুলনার প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. হারুনর রশিদ, সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিনেরপোতা কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. মোশাররফ হোসেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সরেজমিন গবেষনা বিভাগ খুলনার উর্দ্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. মহসীন হাওলাদার, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. মোস্তফা কামাল শাহাদাৎ, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. ওলি আহম্মেদ ফকির, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. মাশফিকুর রহমান, বৈজ্ঞানিক সহকারী অমরেশ চন্দ্র সরকার, মো. মশিউর রহমান, মো. মতিয়ার রহমান, মো. আব্দুস সামাদ, মো. রফিকুল ইসলাম। বীজ বপন অনুষ্ঠানে আরও ৫০জন কৃষক-কৃষাণী উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি বলেন, ‘আমাদের দেশে বর্তমানে বজ্রপাতে অনেক লোক মারা যাচ্ছে, তাই গোপালগঞ্জ প্রকল্পের আওতায় আমরা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাটা জেলার প্রতিটি উপজেলায় ৫ কিলোমিটার করে রাস্তার দু’পাশে বজ্র নিরোধক তালের বীজ বপন করব, যার ধারাবাহিকতায় গত ০১.০১.২০১৯ তারিখে সাতক্ষীরা সদরের ভোমরা ইউনিয়ন পরিষদের সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানের সহায়তায় উত্তর হাড়দ্দহা গ্রামে রাস্তার দু’পাশে ইতোমধ্যে ৫০০ তাল বীজ বপন করা হয়েছে। তাছাড়াও উক্ত প্রকল্পের আওতায় সকল উপজেলায় বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট কর্তৃক উদ্ভাবিত বিভিন্ন ফসলের জাতের উপযোগিতা যাচাই এর লক্ষে গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। প্রসঙ্গত: গোপালগঞ্জ প্রকল্পটি জুলাই ২০১৮ সালে শুরু হয়েছে এবং জুন ২০২৩ পর্যন্ত বাস্তবায়ন করা হবে।

সিপাহী-জনতার অভ্যূত্থান দিবসে জাসদের আলোচনা সভা

৭ নভেম্বর সিপাহী-জনতার অভ্যূত্থান দিবসে জেলায় জাসদের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় মুনজিতপুরস্থ জেলা জাসদের কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জেলা জাসদের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী রিয়াজের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক শেখ ওবায়েদুস সুলতান বাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফ কামাল, জেলা জাসদের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আমির হোসেন খান চৌধুরী, তালা উপজেলা জাসদের সভাপতি বিশ^াস আবুল কাশেম, সাধারণ সম্পাদক মোল্লা আবদুর রাজ্জাক, আশাশুনি উপজেলা জাসদের আহবায়ক সুরাত উজ্জামান, জেলা যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক মিলন ঘোষাল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ) জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এসএম আবদুল আলিম, সাহিদুজ্জামান রুবেল প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর শহীদ কর্নেল আবু তাহের বীর উত্তমের নেতৃত্বে  সিপাহী বিদ্রোহ, সিপাহী-জনতার অভ্যূত্থান ছিল বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতাকে  হত্যা, অবৈধ ক্ষমতা দখল, সংবিধান লংঘন, সামরিক শাসন জারি, সেনাবাহিনীর  প্রাতিষ্ঠানিক ক্ষমতাকে ব্যবহার করে ক্ষমতালিপ্সু অফিসার ব্যক্তিগত ক্ষমতা দখলের জন্য পাগলা কুকুরের মতো কামড়াকামড়ি বন্ধ করতে, রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা-সংকট দূর করতে এবং সেনাবাহিনীসহ ঔপনিবেশিক রাষ্ট্র ব্যবস্থার পরিবর্তন আনতে এক মহান বিপ্লবী প্রচেষ্টা। জিয়ার বিশ্বাসঘাতকতায় সিপাহী-জনতার অভ্যূত্থান প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়ে যায়।

বক্তারা আরো বলেন, জিয়া সিপাহীদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে নিজের ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করতে রক্তের হোলি খেলায় মেতে উঠে। কর্নেল তাহেরকে সাজানো মিথ্যা মামলায় বিচারের নামে প্রহসন করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করে। পরবর্তীতে কয়েকশত অফিসার ও সৈনিককে হত্যা করে। জলিল, রব, সিরাজুল আলম খান, হাসানুল হক ইনু, রবিউল আলমসহ জাসদের নেতাদের সামরিক আদালতে মিথ্যা মামলায় প্রহসণমূলক বিচারে যাবজ্জীবনসহ বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ- দিয়ে অমানবিক কারানির্যাতন চালায়। সিপাহী জনতার অভ্যূত্থান প্রচেষ্টা জিয়ার বিশ্বাসঘাতকতায় সফল না হলেও ঔপনিবেশিক রাষ্ট্র কাঠামোর উপর আঘাত হানে।

আলোচকরা বলেন, ইতিহাস ৭ নভেম্বরের ঘটনায় কর্নেল তাহেরকে মহানায়ক আর জিয়াকে খলনায়ক হিসেবে চি‎হ্নিত করেছে। যারা ৭ নভেম্বরকে অফিসার হত্যা বা বিপ্লব সংহতি হিসেবে চিহ্নি‎ত করার অপচেষ্টা করে যাচ্ছে তারা আসলে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার  হত্যাকারী ও ক্ষমতালিপ্সু অফিসারদের কামড়াকামড়ির কুৎসিত ঘটনা আড়াল করতে চায়।

জেলা জাসদের নেতৃবৃন্দ বলেন, জিয়া, খালেদ, শাফায়াত জামিলসহ সবাই কি আঙ্গুল চুষছিল? খালেদ বঙ্গবন্ধুর খুনীদের শায়েস্তা করতে না, নিজে ক্ষমতা দখল করতে অভ্যূত্থান করেছিল। খালেদ বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার খুনীদের নিরাপদে দেশত্যাগ করার সুযোগ করে দেয়। খালেদ খুনি মোস্তাককে আটক করাতো দূরের কথা তার সাথেই যোগসাজশে নিজে সেনাপ্রধানের ব্যাজ লাগান। শহীদ কর্নেল তাহের শুধু আদালতের রায়েই একজন মহান দেশপ্রেমিক বিপ্লবী না, কর্নেল তাহের জনতার বিচারেও একজন মহান দেশপ্রেমিক বিপ্লবী। জাসদ কর্নেল তাহেরের চেতনাকে ধারণ করেই শোষণ-বৈষম্য-বঞ্চনামুক্ত দেশ গড়ার  সংগ্রাম করে যাচ্ছে। জাসদের সুশাসনের জন্য সংগ্রাম আর শেখ হাসিনার শুদ্ধি অভিযান একে অপরের পরিপূরক। কর্নেল তাহেরের মতো সাহস নিয়ে দুর্নীতিবাজ লুটেরাদের আখড়ায় আঘাত হানার জন্য প্রস্তুত হতে জাসদের নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। প্রেসবিজ্ঞপ্তি

৭ নভেম্বর উপলক্ষে আলোচনা সভা

নিজস্ব প্রতিনিধি:  ৭ নভেম্বর  উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম জেলা কমিটির উদ্যোগে বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় জেলা আইনজীবী সমিতিতে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম জেলা কমিটির সভাপতি এড. আবুল হোসেনের সভাপতিত্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাবেক পিপি এড. সৈয়দ ইফতেখার আলী।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের জেলা সাধারণ সম্পাদক এড. সোমনাথ ব্যানাজী, জেলা বিএনপির সাবেক উপদেষ্টা এড. সরদার আমজাদ হোসেন, এড. শহিদুল্লাহ, এড. এবিএম সেলিম, এড. সৈয়দ রেজওয়ান আলী, এড. মোস্তফা জামান, এড. আকবর আলী, এড. নুরুল আমিন, এড. অসিম মন্ডল, এড. সরদার সাইফ, এড. বাপ্পি, এড. সোহরাব হোসাইন, এড. আকরাম হোসেন, এড. জিয়াউর রহমান জিয়া প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ এ সময় বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ দলের নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবী জানান।

একই অনুষ্ঠানে গণফোরাম জেলা শাখার সাবেক আইন বিষয়ক সম্পাদক জজ কোর্টের আইনজীবী আ. ক. ম. সামছুদ্দোহা খোকন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে ফুলের তোড়া দিয়ে যোগদান করেন।

দেবহাটা থানায় নারী শিশু ও প্রতিবন্ধী বিষয়ক হেল্প ডেস্ক

দেবহাটা ব্যুরো: দেবহাটা থানা পুলিশের সেবার মানোন্নয়নে নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধী বিষয়ক হেল্প ডেস্কের কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। সম্প্রতি দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহার তত্ত্বাবধানে জোরদার করা হয় নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধী বিষয়ক হেল্প ডেস্কের কার্যক্রম। পাশাপাশি নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধী বান্ধব অফিসার হিসেবে দায়িত্বরত থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই নয়ন চৌধুরীর নেতৃত্বে অবহেলিত, সুবিধাবঞ্চিত নির্যাতিতদের সার্বক্ষণিক সেবা দিয়ে যাচ্ছেন পুলিশ সদস্যরা।

 

দেবহাটায় সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী বিষয়ক কর্মশালা

দেবহাটা ব্যুরো: ‘শেখ হাসিনার মমতা, বয়স্কদের নিয়মিত ভাতা’ ও ‘শেখ হাসিনার উদ্ভাবন, বয়স্ক ভাতার প্রচলন’ শীর্ষক স্লোগানকে সামনে রেখে দেবহাটায় সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় দেবহাটা উপজেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হলরুমে কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাজিয়া আফরীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল গনি। কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা সমাজসেবা অধিদপ্তরের পরিচালক দেবাশিস সরদার, উপ-পরিচালক রেজাউল করিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নওয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবর রহমান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, দেবহাটা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সবুজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জিএম স্পর্শ, দেবহাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওহাব, পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, কুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আসাদুল ইসলাম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল লতিফ, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা বদরুজ্জামান প্রমুখ।

দেবহাটায় মৎস্য ঘের দখলে নিতে সন্ত্রাসীদের হামলা ভাংচুর, ককটেল বিস্ফোরণ: আতংক

দেবহাটা ব্যুরো: দেবহাটার সখিপুরে মাদার গাজী ও বাবুরালী গাজী নামের আপন দুই ভাইয়ের মধ্যকার দ্বন্দ্বে একটি মৎস্যঘের দখল পাল্টা দখল নিয়ে চলছে মহড়া। গত কয়েকদিনে দুপক্ষের শতাধিক ভাড়াটে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হামলা পাল্টা হামলার ঘটনায় গোটা এলাকা জুড়ে সাধারণ মানুষের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। উপজেলার উত্তর সখিপুর পিলেরমাঠ এলাকায় অবস্থিত ওই মৎস্য ঘেরটি দখলে নিতে ৭ নভেম্বর মধ্যরাত থেকে ভোররাত পর্যন্ত কয়েকটি ইঞ্জিনভ্যানে আসা একপক্ষের শতাধিক ভাড়াটে সশস্ত্র সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ঘেরের বাসা ভাংচুর ও পরপর কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে। এসময় ককটেল বিস্ফোরণ ও সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের চিৎকার আর দাপাদাপিতে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে এলাকার ঘুমন্ত সাধারণ মানুষ। সন্ত্রাসীরা এসময় বিনাকারণে এবাদুল ইসলাম (৩২) নামের স্থানীয় এক যুবককে মারপিট করে মাথা ফাটিয়ে দেয়। খবর পেয়ে দেবহাটা থানা পুলিশের একটি দল রাতেই ঘটনাস্থলে পৌছালে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। এসময় ঘটনাস্থল থেকে দুটি ইঞ্জিনভ্যান ও বেশ কিছু লাঠিশোঠা উদ্ধার করে পুলিশ। এলাকাবাসী জানায়, দেবহাটার উত্তর সখিপুর পিলেরমাঠ এলাকার এক একর চার শতক জমির একটি মৎস্য ঘেরের দখল নিয়ে আপন দুই ভাই মাঝ সখিপুর গ্রামের মৃত বশির গাজীর দুই ছেলে মাদার গাজী ও বাবুরালী গাজীর পরিবারের মধ্যে চরম বিরোধ চলে আসছিলো। বিষয়টি নিয়ে আদালতেও মামলা চলছিলো দু’পক্ষের। সম্প্রতি মামলাটি খারিজ হওয়ায় আদালতের রায় চলে যায় মাদার গাজীদের পক্ষে। এদিকে বিষয়টি নিয়ে উচ্চ আদালতে আপীল করে অপর ভাই বাবুরালী গাজীর পরিবার। এরই মধ্যে গত ৪ নভেম্বর ভোররাতে মাদার গাজীর পরিবারের পক্ষে শতাধিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্র ও লাঠিশোঠা নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে মৎস্য ঘেরটির দখল নেয়। সেসময়েও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছানোর আগেই সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। ওই রাতে আবার মৎস্য ঘেরটিতে বিষ প্রোয়োগের ঘটনা ঘটে। এতে করে একটি মামলাও হয় দেবহাটা থানায়। তিনদিন মৎস্য ঘেরটি মাদার গাজীর পরিবারের দখলে থাকার পর বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে বাবুরালী গাজীর পরিবারের পক্ষ থেকে শতাধিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী অতর্কিত পাল্টা হামলা চালিয়ে ঘেরের বাসা ভাংচুর, কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টিসহ মৎস্য ঘেরটি ফের দখলে নেয়। ঘের দখলকালে ওই পথ দিয়ে বাড়ি ফেরা যুবক এবাদুলকে বেধড়ক মারপিট করে সন্ত্রাসীরা।

এ ব্যাপারে দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, প্রত্যেক বারই সন্ত্রাসীদের উপস্থিতি ও হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। কিন্তু পুলিশ পৌছানোর আগেই সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থল থেকে সন্ত্রাসীদের নিয়ে আসা দুটি ইঞ্জিনভ্যান ও বেশ কিছু লাঠি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে পুলিশ সদস্যরা। এঘটনার পরপরই শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে পেনাল কোডের ১৫৪ ধারামর্তে উভয় পক্ষকে সতর্কীকরণ নোটিশ দেয়া হয়েছে। পুলিশের নোটিশ উপেক্ষা করে কোন পক্ষ ওই এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটালে তাদেরকে কঠোর ভাবে দমন করা হবে বলেও জানান ওসি।

দেবীপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে জরুরী রোগী পরিবহনে উপজেলা পরিষদের ভ্যান প্রদান

পীযূষ বাউলিয়া পিন্টু, মুন্সিগঞ্জ (শ্যামনগর): ‘শেখ হাসিনার অবদান, কমিউনিটি ক্লিনিক বাচাঁয় প্রাণ’ শ্যামনগরের দেবীপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের জরুরী রোগী পরিবহন করার জন্য ভ্যান প্রদান করলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম আতাউল হক দোলন। ৭ নভেম্বর শ্যামনগররের দেবীপুর কমউিনিটি ক্লিনিকের জরুরী রেফারকৃত রোগী উপজেলা হাসপাতালে পরিবহনের জন্য উপজেলা পরিষদ হতে ১টি মটরভ্যান প্রদান করেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত ১৬ সেপ্টেম্বর তারিখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজজামান দেবীপুর কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করে বিভিন্ন ধরনের উদ্ভাবনীমুলক কার্যক্রম দেখে খুশি হয়ে একটি মডেল কমিউনিটি ক্লিনিকে পরিণত করার জন্য উপজেলা পরিষদ হতে সকল ধরনের সহযোগিতা প্রদান করবেন বলে আশ্বাস দেন। তারই অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার দেবীপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে ভ্যান প্রদান করা হয়। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দেবীপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের জমিদাতা রাজেন্দ্র মন্ডলসহ এলাকার সুধীজন।

শ্যামনগরে অসহায় প্রবীণ প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ

আটুলিয়া (শ্যামনগর) প্রতিনিধি: শ্যামনগরের আটুলিয়ায় ৭ নভেম্বর সকাল ১১টায় পিকেএসএফ’র সহযোগিতায় এনজিএফ’র বাস্তবায়নে প্রবীণ জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আটুলিয়া ইউনিয়নে অসহায় প্রতিবন্ধী প্রবীণদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এনজিএফ পরিচালক (এমএফ) আলমগীর কবির, এনজিএফ’র হেড অব এ্যাডমিন হুমায়রা লুৎফি ও প্রবীণ কর্মসূচির ইউনিয়ন সভাপতি গাজী মোজাম্মেল হোসেন। উল্লেখ্য, আটুুুলিয়া ইউনিয়নের প্রবীণ জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নে নওয়াবেঁকী গণমূখী ফাউন্ডেশন দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় এ কর্মসূচি পালিত হয়।