শেখ মফিজুর রহমান অস্ট্রেলিয়ায় সফররত বাংলাদেশ দলের দলনেতা নির্বাচিত

বদিউজ্জামান: সাতক্ষীরার জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমানকে অস্টেলিয়ায় সফররত বাংলাদেশ জুডিসিয়াল অফিসার্স টিমের দলনেতা নির্বাচন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার অস্টেলিয়ায় অনুষ্ঠিত এক ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব ওই ঘোষণা দেন।
উল্লেখ্য, বিচার বিভাগে দক্ষতা বৃদ্ধির অংশ হিসাবে উচ্চতর প্রশিক্ষণ নিতে সম্প্রতি সুদূর অস্ট্রেলিয়া পৌছেছেন সাতক্ষীরার জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমানসহ ৩০ সদস্যের একটি টিম। বাংলাদেশ সরকার দুই সপ্তাহের এই প্রশিক্ষণের জন্য তাঁদেরকে মনোনয়ন প্রদান করেন। অস্ট্রেলিয়ার সিডনির ওয়েস্টার্ণ ইউনিভার্সিটিতে ওই প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবেন তাঁরা। প্রশিক্ষণ গ্রহণকালে অস্ট্রেলিয়ার আইন ও বিচার ব্যবস্থা বিষয়ে সরাসরি ধারণা প্রদান করা হবে এবং উক্ত প্রশিক্ষণলব্ধ অভিজ্ঞতা বাংলাদেশের নিন্ম আদালত সমূহে কাজে লাগানো হবে। এ মাসের ৯ নভেম্বর থেকে ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়াতে ওই প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হবে।

কলারোয়ায় যুগিখালী ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটির ওরিয়েন্টশন অনুষ্ঠিত

কলারোয়ায় পিপিজে-সাতক্ষীরা প্রকল্পের আওতায় যুগিখালী ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটির সদস্যদের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সকাল ১০টায় যুগিখালী ইউনিয়ন পরিষদ হল রুমে সাতক্ষীরা জেলা আইন সহায়তা কমিটি ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা উইমেন জব ক্রিয়েশন সেন্টার যৌথভাবে এ ওরিয়েন্টশন সভার আয়োজন করে।
যুগিখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও লিগ্যাল এইড কমিটির সভাপতি মো: রবিউল হাসানের সভাপতিত্ব করেন। এসময় তিনি কমিটির সদস্যদের বলেন, আমাদের আরো বেশি সজাগ থাকতে হবে, যেন ইউনিয়নের কোন দরিদ্র মানুষ টাকার অভাবে আইনী অধিকার থেকে বঞ্চিত না হয়। আজ থেকে আপনার (কমিটির সদস্যবৃন্দ) ইউনিয়নের প্রতিটি এলাকার মানুষকে সরকারের বিনা খরচে আইনগত সহায়তা কার্যক্রমের বিষয়ে প্রচার করবেন। যুগিখালী ইউনিয়নের সকল মানুষের আইনী অধিকার আমাদেরকেই নিশ্চিত করতে হবে। তিনি সরকারের এই কার্যক্রম বাস্তবায়নে উপস্থিত সকলকে সহযোগিতা করার আহবান জানান।
ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটির সদস্যদের ওরিয়েন্টশনে সরকারের আইনগত সহায়তা প্রদান আইন-২০০০ এবং লিগ্যাল এইডের কার্যক্রম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন উইমেন জব ক্রিয়েশন সেন্টারের পিপিজে-সাতক্ষীরা প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার মোস্তাক আহমেদ। এসময় তিনি জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটির দায়ীত্ব সম্পর্কে আলোচনা করেন। এছাড়া কারা সরকারি আইনগত সহায়তা পাবে, কি ধরনের সহায়তা পাবে এবং ইউএসএআইডি’র প্রমোটিং পিস এন্ড জাস্টিস (পিপিজে) এ্যাকটিভিটি’র কার্যক্রম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন। ওরিয়েন্টেশনে তিনি সরকারের বিনা খরচে আইনগত সহায়তা (লিগ্যাল এইড) কার্যক্রম সম্পর্কে ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের মাঝে প্রচার করার অনুরোধ জানান। পরে তিনি উপস্থিত সদস্যদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।
ওরিয়েন্টেমনে উপস্থিত ছিলেন, ইউনিয়নের সচিব ও কমিটির সদস্য সচিব মো: জাহাঙ্গীর হোসেন, ইউপি সদস্য বিউটি ইয়াছমিন, সাজেদা বেগম, মাছুরা বেগম, আব্দুল জলিল, আবু বক্কর সিদ্দিক, খোরশেদ আলম, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা তুষার কান্তি, ইউনিয়ন প:প: কর্মকর্তা ফাতেমাতুজ জোহরা, শিক্ষিকা জাহানারা বেগম, আনসার ভিডিপির ইউনিয়ন কমান্ডার সুপিয়া বেগম, ব্যবসায়ী মশিউর রহমান, কমিটির সদস্য নাছরিন নাহার ও দ্বিপালী ঘোষসহ কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার গঠনে পর্যালোচনা সভা

এসডিজি’র লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে ইউনিয়ন পর্যায়ের সরকারি দপ্তরসমূহের সেবা প্রদান সম্পর্কিত পর্যালোচনা সভা আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে রূপসা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রূপসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. কামাল উদ্দীন বাদশা। স্থানীয় সরকার বিভাগ ও রূপসা উপজেলা পরিষদ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নে তৃণমূল পর্যায়ে সরকারি দপ্তরগুলোর সেবা প্রদান সবার আগে নিশ্চিত করতে হবে। বাংলাদেশ এখন বিশ^ উন্নয়নের অংশীদার, আন্তর্জাতিক মানদন্ডের ওপর ভিত্তি করে সরকার সারা দেশে সুষম উন্নয়নে নানামুখী কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। বক্তারা ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ প্রতিপাদ্যকে সফল করতে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে আরও আন্তরিকতার সাথে তাদের স্ব স্ব সেবা প্রদানে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
এতে সভাপতিত্ব করেন রূপসা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন আক্তার। এসময় কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার প্রকল্পের খুলনা জেলা সমন্বয়ক মো: ইকবাল হাসানসহ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য, সেবা প্রদানকারী বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। তথ্য বিবরণী

খুলনায় মাছ-মাংস বিক্রিতে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা প্রদান: ব্যত্যয় ঘটলে আইনগত ব্যবস্থা

খুলনা কৃষি বিপণন অধিদপ্তর মাছ-মাংস বিক্রিতে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি করেছে। নির্দেশনা না মানলে আগামী ১৬ নভেম্বর হতে অভিযান চালিয়ে প্রযোজ্য আইনে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
খুলনার কয়েকটি বাজারে মাছ-মাংস বিক্রেতারা তাজা মাছ বা মাংসের সাথে বাসি মাছ বা মাংস মিশিয়ে বিক্রি, বরফের কুচিসহ মাছ বিক্রি, বড় মাছের সাথে ছোট মাছ মিশিয়ে বিক্রি, সোনালি মুরগিকে দেশি মুরগি বলে বিক্রিসহ আরও অসাধু পথ অবলম্বন করে ক্রেতাদের প্রতারিত করে আসছে বলে লক্ষ্য করা যাচ্ছে।
কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের নির্দেশনায় বলা হয়েছে: বড়, মাঝারি, ছোট মাছ এবং তাজা ও বাসি মাছ বাছাই করে পৃথকভাবে দোকানে সাজিয়ে বিক্রি করতে হবে। দেশি মুরগি, সোনালি মুরগি, কক, ব্রয়লার আলাদা আলাদা খাঁচায় রেখে মূল্য তালিকা লাগিয়ে বেঁচা-কেনা করতে হবে। খাঁসি, বকরি ও ভেড়ার মাংস পৃথকভাবে চিহ্নিত করে বিক্রি করতে হবে। পাশাপাশি মাছ বিক্রিতে পরিমাপের সময় অতিরিক্ত পানি অথবা বরফকুচিসহ ওজন করা বা ওজনে কম দেওয়া যাবে না।
এই সকল নির্দেশনার ব্যত্যয় ঘটলে ১৬ নভেম্বর থেকে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। তথ্য বিবরণী

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ওপর খুলনায় জনসচেতনতামূলক সেমিনার

‘ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০১৯ প্রচারের মাধ্যমে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সেমিনার’ আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। খুলনা জেলা প্রশাসন ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
প্রধান অতিথি তাঁর বক্তৃতায় বলেন, ব্যবসায়ীদেরকে দেশের আইন-কানুন মেলে চলে ব্যবসা পরিচালনা করতে হবে। আইনের ব্যত্যয় ঘটলে অপ্রীতিকর আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হয়। এর ফলে ব্যবসায়ী ও জেলা প্রশাসনের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়। ব্যবসায়ীরা তাদের দায়িত্বটুকু সঠিকভাবে পালন করলে অপ্রীতিকর পরিস্থিতির উদ্ভব ঘটবে না। তিনি বলেন, সরকারের মূল লক্ষ্য হলো ব্যবসাক্ষেত্রে শৃঙ্খলা রক্ষা করা। ভোক্তদের অধিকার রক্ষায় সকলকে সচেতন হতে হবে।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর খুলনার উপপরিচালক এসএম নাজিমুল ইসলাম, খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল, জেলা বাজার কর্মকর্তা আব্দুস সালাম তরফদার প্রমুখ। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ওপর ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর খুলনার সহকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম। সেমিনারে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী ও ব্যবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিরা অংশ নেন। তথ্য বিবরণী

তালায় ইউএনও’র উপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা

ইলিয়াস হোসেন, তালা: তালায় ইউএনও’র উপর হামলার ঘটনায় ১১ জনের বিরুদ্ধে তালা থানায় একটি মামলা হয়েছে। ৪ নভেম্বর সোমবার তালা উপজেলার মাদরা গ্রামের সরকারী খাল দখলমুক্ত করার সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইকবাল হোসেনের উপর হামলা করে দুবৃত্তরা। এঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ড্রাইভার রোকনুজ্জামান বাদী হয়ে ৬ নভেম্বর বুধবার তালা থানায় দন্ডবধির ১৪৩, ৩৩২, ৩৫৩ ও ৩৭৯ ধারা উল্লেখ করে একটি মামলা করেছে, যার মামলা নং-০৪। উক্ত এজাহারে ১১ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক ৭০ থেকে ৮০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে। এখনো পর্যন্ত কোন আসামী গ্রেপ্তার হয়নি।
তালা থানার ওসি মেহেদী রাসেল এ প্রতিবেদককে বলেন, এ মামলার আসামী যেই হোক না কেনো তাকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে। বর্তমান আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য সর্বোচ্চ অভিযান চলমান আছে।

সাতক্ষীরা পৌরসভার সাবেক মেয়র শেখ আশরাফুল হকের মৃত্যুতে জাতীয় পার্টির শোক

সাতক্ষীরা পৌরসভার সাবেক মেয়র ও প্রবীণ আ.লীগ নেতা আশরাফুল হকের (৯২) মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি দিয়েছে সাতক্ষীরা জেলা জাতীয় পার্টি। বৃহস্পতিবার সকালে শহরের সুলতানপুরস্থ নিজস্ব বাসভবনে বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেন এই বরেণ্য রাজনীতিক।
তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখত, জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন, সহ সভাপতি নুরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশু, যুব সংহতির আহবায়ক আশিকুর রহমান বাপ্পি, সদস্য সচিব আবু তাহের, ছাত্র সামজের সভাপতি কায়সারুজ্জামান হিমেল, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল ইসলাম, সাংগঠণিক সম্পাদক রোকনুজ্জামান সুমনসহ জেলা জাতীয় পার্টির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠণের সকল নেতৃবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

শ্যামনগরে প্রকল্প বাস্তবায়নে স্টেক হোল্ডার ভিত্তিক নারী গ্রুপের সাথে মত বিনিময়

পীযূষ বাউলিয়া পিন্টু, মুন্সিগঞ্জ (শ্যামনগর): শ্যামনগরের জলবায়ু পরিষদের উদ্যোগে বুধবার বিকাল চারটায় শ্যামনগর সিএসআরএল কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন সাবেক অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহি। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ কাউন্সিলের প্রতিনিধি ফরহাদ হোসেন, ও কামরুন্নেসা নাজলি, নারী নেত্রী ও জলবায়ু পরিষদের সদস্য চন্দ্রিকা ব্যানার্জি, সুফিয়া খাতুন, রানী, ইউপি সদস্য রওশন আরা বিথী শিক্ষক সাংবাদিক রঞ্জিত বর্মন, জলবায়ু পরিষদ সদস্য সাংবাদিক পীযূষ বাউলিয়া পিন্টু, সিএফটিএম প্রকল্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুপর্ণা কর্মকার, রফিকুল ইসলাম বেলাল হোসেন প্রমূখ। উপকূলীয় অঞ্চল শ্যামনগরে বাস্তবায়িত জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ডের বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নে জন অংশ গ্রহণ নারীদের ভূমিকা ও স্বচ্ছতা জবাব দিহিতা নিয়ে নারী সংগঠন ও জলবায়ু পরিষদের সদস্যদের সাথে মতবিনিময় করেন। এছাড়া এই অঞ্চলে জলবায়ু সহনশীল ও নারীবান্ধব কি কি প্রকল্প গ্রহণ করা যায় সে বিষয়ে সকলের নিকট মতামত গ্রহণ করেন।

রাজকোটে জয়টা ক্রিকেটের নাকি বৃষ্টির?

সিরিজের জয়ের স্বপ্ন নিয়ে ভারতের গুজরাট রাজ্যের রাজকোটে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ঘূর্ণিঝড় মহার কারণে অবশ্য ম্যাচটি মাঠে গড়ানো নিয়ে সংশয় রয়েছে। সব ঠিক থাকলে আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় দুই দল মাঠে নামবে। তবে রাজকোটের ম্যাচে জয়টা বৃষ্টির নাকি ক্রিকেটের- এনিয়ে সন্দেহ আছে যথেষ্ট! ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টেলিভিশন।  

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে থেকে নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচ হেরে ব্যাকফুটে থাকা ভারত যে কোনও মূল্যে সিরিজে সমতায় ফিরতে চাইবে। ঘরের মাঠে চারটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারের রেকর্ড অবশ্য আছে রোহিত শর্মার দলের। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলগুলো ভারতকে তাদের মাটিতে হারিয়েছে। এবার বাংলাদেশের সামনে সুযোগ ভারতকে আরও একটি সিরিজ হারের লজ্জা দেওয়ার।

মোস্তাফিজরা নিজেদের সেরাটা দিতে চানমোস্তাফিজরা নিজেদের সেরাটা দিতে চানভারতের মাটিতে এতদিন ভারতকে হারানো বাংলাদেশের জন্য অসাধ্য ব্যাপার ছিলো। দিল্লিতে সেই কাজটাই কত সহজেই না করে ফেলেছেন মাহমুদউল্লাহরা। এই জয়ের পর বাংলাদেশের জন্য কাজটা এখন আর তেমন কঠিন বলে মনে হচ্ছে না। আজ জিততে পারলেই নিশ্চিত হবে সিরিজ। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও ভীষণ আত্মবিশ্বাসী, ‘অবশ্যই, এটা আমাদের জন্য দারুণ সুযোগ, বিশেষ করে আমরা যখন প্রথম ম্যাচ জিতে শুরু করেছি সিরিজ। ‍আমাদের ‍জন্য দুর্দান্ত সুযোগ, আমার মনে হয় ছেলেরা সবাই মুখিয়ে আছে। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) ভারতকে হারাতে হলে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। কারণ আমরা সবাই জানি তারা (ভারত) দেশ ও দেশের বাইরে সব জায়গায় শক্তিশালী দল। তাই আমাদের প্রথম বল থেকে নিজেদের সেরাটা দিতে হবে।’

এদিকে সমতা ফেরানোর ম্যাচে ভারতও ছেড়ে কথা বলবে না। সংবাদ সম্মেলনে ভারতীয় অধিনায়ক রোহিতের কথাতেই সেটা স্পষ্ট, ‘কৌশল কী হবে, আমি আপনাদের বলবো না। তবে আমি এটা নিশ্চিত করছি, আমাদের অ্যাপ্রোচে বদল আসবে। এই ম্যাচে আমাদের খেলাটা অন্যরকম হবে।’

আজও সেরা ইনিংস খেলতে চাইবেন মুশফিকআজও সেরা ইনিংস খেলতে চাইবেন মুশফিকদ্বিতীয় ম্যাচের একাদশে ভারতীয় দলে বেশ কিছু পরিবর্তন এলেও বাংলাদেশের সেই সম্ভাবনা ক্ষীণই বলা চলে। সাকিব-তামিমের অনুপস্থিতিতে জুনিয়ররা বেশ ভালোই দায়িত্ব পালন করেছেন। বিশেষ করে আফিফ হোসেন, নাঈম শেখ ও আমিনুল  ইসলাম বিপ্লব বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে তারুণ্য ও ছন্দ নিয়ে এসেছেন। তাদের শারীরিক ভাষা দিয়ে দলের চিত্র অনেকটা বদলে দিয়েছেন। সব মিলিয়ে তাই প্রথম ম্যাচের একাদশের ওপর ভরসা রাখার জোর সম্ভাবনা রয়েছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টের।

তবে সব কিছু ম্লান হয়ে যেতে পারে ঝড়ের কারণে। বুধবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় দিকে ঝড়ো হাওয়া শুরু হয়। বৃহস্পতিবার ভোরে ১২০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়েছে এই ঘূর্ণিঝড়টি। এর প্রভাবে সারাদিনই রাজকোটে বৃষ্টি হবে। সেই বৃষ্টিতে খেলা হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণই বলা চলে। যদিও স্থানীয় কিউরেটররা বলেছেন, বিকাল পর্যন্ত বৃষ্টি হলেও স্টেডিয়ামের উন্নত পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা থাকায় এই ম্যাচ মাঠে গড়ানোর ব্যাপারে আশাবাদী তারা।

প্রকৃতির ওপর তো কারও হাত নেই। এখন অপেক্ষা ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব কাটিয়ে রাজকোটের ঝকঝকে আকাশ দেখার। আর সেটা হলেই দুই দলের সামনে সমান সুযোগ তৈরি হবে। বাংলাদেশ যেমন চাইছে ম্যাচটি জিতে সিরিজ নিশ্চিত করতে, অন্যদিকে ভারতও চাইছে ম্যাচটি জিতে সমতায় ফিরতে। দুই দলের চাওয়া ছাপিয়ে বৃষ্টি না জিতে যায়, এমন ভয়ই ক্রিকেট ভক্তদের মনে। এখন দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশ ও ভারতের ক্রিকেটেপ্রেমীরা জয়টা কার হয়- ক্রিকেটের নাকি বৃষ্টির!

বঙ্গোপসাগর এলাকায় ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’

অনলাইন ডেস্ক: পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ সামান্য উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে সরে গিয়ে এখন প্রায় একই এলাকায় অবস্থান করছে।

বৃহস্পতিবার সকালে আবহাওয়া অধিদফতরের এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ সামান্য উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে
অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে।

এতে বলা হয়, ঘূর্ণিঝড়টি বৃহস্পতিবার সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ৮৫৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৯১০ কিলোমিটারদক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে
৮৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল।

এটি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে বলে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৬২ কিলোমিটার যা দমকা অথবা
ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

অধিদফতর বলছে, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও টলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া
পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

জাসদের এমপি মঈন উদ্দীন খান বাদল আর নেই

চট্টগ্রাম-৮ আসন থেকে নির্বাচিত জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সংসদ সদস্য মঈন উদ্দীন খান বাদল মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি….রাজিউন)।

বৃহস্পতিবার ভোরে ভারতের বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

সংসদ সদস্য মঈন উদ্দীন খান বাদলের চাচাত ভাই মো. ইব্রাহিম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে মরহুমের মরদেহ দেশে আনা হবে।

বাংলাদেশ জাসদের কার্যকরি পরিষদের সভাপতি মঈন উদ্দীন খান বাদল গত বছর ব্রেইন স্ট্রোক হওয়ার পর থেকেই অসুস্থ ছিলেন।

দেশের মাটিতে মুক্তিযোদ্ধা খোকার প্রথম জানাজা

অনলাইন ডেস্ক: বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার কিছু সময় পর জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় এই মুক্তিযোদ্ধার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। দেশের মাটিতে এটিই তার প্রথম জানাজা।

জানাজায় সাবেক রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, জাতীয় সংসদের সদস্য, বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতারাও ছাড়াও খোকার রাজনৈতিক শুভাকাঙক্ষীরা উপস্থিত ছিলেন।

জানাজার আগে খোকার পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তৃতা করেন তার বড় ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন। তিনি তার বাবার রুহের মাগফেরাত কামনায় সবার কাছে দোয়া চান।

এর আগে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় খোকার কফিনবাহী গাড়ি পৌঁছায়। পরে দক্ষিণ প্লাজায় অস্থায়ীভাবে স্থাপিত মঞ্চে মরদেহের কফিনটি রাখা হয়। সেখানে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজা শেষে খোকার কফিনে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান তার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মীরা। এসময় অনেককে কাঁদতে দেখা গেছে।

এর আগে সাদেক হোসেন খোকার লাশ আজ সকাল ৮টা ২৮ মিনিটে রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে।

খোকার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু তার মরদেহ গ্রহণ করেন। বিমানবন্দর থেকে খোকার মরদেহ জাতীয় সংসদ ভবনে নেয়া হয়। লাশবাহী গাড়িতে ছিলেন মির্জা আব্বাস।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার প্রথম জানাজা জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজায় যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত সর্বস্তরের বাংলাদেশিরা অংশ নিয়েছেন। জানাজা শেষে তাকে গার্ড অব অনার দেয়া হয়।

বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে সাদেক হোসেন খোকার মরদেহ নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয় তার পরিবার।

সাদেক হোসেন খোকা সোমবার বেলা ১টা ৫০ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মারা যান। ক্যান্সারে আক্রান্ত খোকা প্রায় পাঁচ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসিত ছিলেন।

সবশেষ ১৮ অক্টোবর নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে ভর্তি হন খোকা। গত সোমবার তার শ্বাসনালি থেকে টিউমার অপসারণ করা হয়। নিউইয়র্ক সময় রাত ২টা ৫০ মিনিটে ও বাংলাদেশ সময় সোমবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।

১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালে সাদেক হোসেন খোকা মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন একজন গেরিলা যোদ্ধা। ১৯৯১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রথম সাদেক হোসেন খোকা বিএনপি থেকে এমপি নির্বাচিত হন। তার দল সরকার গঠন করলে তিনি যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব লাভ করেন। পরবর্তী সময়ে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালেও তিনি সাংসদ নির্বাচিত হন। পরে তাকে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী করা হয়। ২০০১ সালে তার দল সরকার গঠন করলে তিনি মৎস্য ও পশুসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব লাভ করেন। ২০০২ সালে তিনি অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র হন।

মৃত্যুর আগে বারবার দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছিলেন খোকা। সবশেষ হাসপাতালে ভর্তির আগে বন্ধু বিএনপি নেতা ইকবাল হাসান টুকুকে টেলিফোনে বলেছিলেন, জীবনবাজি রেখে যে দেশ স্বাধীন করেছিলাম, সে দেশের মাটিতে ফিরতে পাব কিনা আল্লাহ জানেন।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের অভিযানে মাদক মামলার ১৪ জনসহ গ্রেপ্তার ৩৫

অনলাইন ডেস্ক: সাতক্ষীরা জেলাব্যাপি পুলিশের অভিযানে ৩৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এসময় ৩৮০ পিস ইয়াবা ও ৪৪৬ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। আজ ৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় জেলাব্যাপি পরিচালিত অভিযানে এসব মাদক ও আসামীদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে সাতক্ষীরা সদর থানায় ১৯ জন, কলারোয়ায় ৩, তালা ১, শ্যামনগর ৩, আশাশুনি ১, দেবহাটা ১ ও পাটকেলঘাটায় ৭ জন। গ্রেপ্তারকৃতদের ১৪ জনের বিরুদ্ধে মাদকের ৮ টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

খুলনা জেলা পুলিশের অভিযানে মাদক মামলার ৮জনসহ গ্রেপ্তার ১৮

অনলাইন ডেস্ক: খুলনা জেলা পুলিশের নিয়মিত অভিযানে ৬ নভেম্বর সকাল ৮টা থেকে ৭ নভেম্বর সকাল ৮টা পযর্ন্ত ২৪ ঘন্টায় ৮ জন মাদক ব্যবসায়ীসহ মোট ১৮ জন আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন থানা এলাকা থেকে এসব মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করা হয়। আটককৃতদের কাছ থেকে ৩৮ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয় এবং মোট ৫ টি মাদক মামলা রুজু করা হয়।

শেখ আশরাফুল হক এর মৃত্যুতে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের গভীর শোক

সাতক্ষীরা পৌরসভার সাবেক মেয়র ও বিশিষ্ঠ আওয়ামী লীগ নেতা শেখ আশরাফুল হক আর নেই। আজ সকাল ৭টা ১৫মিনিটের সময় তিনি শহরের সুলতানপুরে অবস্থিত তার নিজস্ব বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। (ইন্না লিল্লাহি —-রাজেউন) মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। মৃত্যকালে তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র, ২ কন্যাসহ অসংখ্য আত্মিয় স্বজন বন্ধু বান্ধব গুনাগ্রাহী রেখে গেছেন।
বৃহস্পতিবার বাদ আছর বিকাল ৪টা ৪৫ মিনিটে শহরের সুলতানপুর ক্লাব মাঠে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে।
তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সভাপতি অধ্যাপক আবু আহমেদে, সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহী, সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপী, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুস সামাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এম শাহীন গোলদার, অর্থ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক আব্দুল জলিল, দপ্তর সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল, নির্বাহী সদস্য সেলিম রেজা মুকুল, গোলাম সরোয়ার, ইয়ারব হোসেন, জি.এম আদম শফিউল্লাহ ও কৃষ্ণ মোহন ব্যানার্জীসহ সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি