ভুল করে হাইজ্যাক অ্যালার্ম বাজানোয় বিমানবন্দরে হুলুস্থুল কাণ্ড

অনলাইন ডেস্ক: নেদারল্যান্ডসের রাজধানী অ্যামস্টারডেমের একটি বিমানবন্দরে ভুলবশত হাইজ্যাক অ্যালার্ম বাজিয়েছিলেন এক পাইলট, আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হুলুস্থুল কাণ্ড ঘটে গেছে সেখানে।

বুধবার শহরটির শিফোল বিমানবন্দরে এই ঘটনা ঘটে। হাইজ্যাক অ্যালার্ম বাজার পরপরই ডাচ পুলিশ বাহিনী সেখানে অভিযান চালায়।

ভুল করে হাইজ্যাক অ্যালার্ম বাজানোর ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছে স্প্যানিশ এয়ারলাইন ‘এয়ার ইউরোপা’ কর্তৃপক্ষ।

এক টুইটবার্তায় এয়ারলাইন কর্তৃপক্ষ জানায়, ‘আজ বিকেলে অ্যামস্টারডেম থেকে মাদ্রিদগামী বিমানে ভুল করে হাইজ্যাক অ্যালার্ম বাজানো হয়, যার ফলে বিমানবন্দরের হাইজ্যাকিং প্রটোকলটি চালু হয়ে যায়। এরপর ডাচ পুলিশ এ পরিস্থিতির তদন্ত করে।’

তারা আরো জানায়,‘বিমানের সকল যাত্রীরা নিরাপদে আছেন ও শীঘ্রই বিমানটি অবতরণ করবে। সাময়িক এই ত্রুটির জন্য আমরা গভীরভাবে ক্ষমাপ্রার্থী।’

বিমানটি মোট ২৭ জন যাত্রী ছিল বলে ডাচ সংবাদমাধ্যমসমূহ জানিয়েছে।

ঘটনাস্থলের প্রকাশিত এক ছবিতে দেখা যায়, বিমানটিকে পুলিশের বেশকিছু গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স ঘিরে রয়েছে। এছাড়া তারা বিমানবন্দরের বেশ কিছু অংশও ঘেরাও করে ফেলে।

ইউরোপের ব্যস্ততম বিমানবন্দরগুলোর মধ্যে শিফোল অন্যতম। এর ওয়েবসাইটের তথ্য অনুসারে প্রতি বছর গড়ে ৭০ মিলিয়নের বেশি যাত্রী এই বিমানবন্দরটি ব্যবহার করে থাকে।

দেশসেরা জিমন্যাস্ট থেকে হলেন পর্ন তারকা!

অনলাইন ডেস্ক: এক সময় ছিলেন বিশ্বের সেরা জিমন্যাস্টদের অন্যতম। তবে গত ১৭ বছরে তার জীবন পুরোপুরি বদলে গেছে। আট বছর ধরে পর্নতারকা হয়ে কাজ করছেন।

নেদারল্যান্ডসের গৌডা অঞ্চলে আর্টিস্টিক জিমন্যাস্ট ভেরোনা ভ্যান দ্য ল্যর এর জীবন তার ভল্টের মতোই চমকপ্রদ। ১৯৮৫ সালে জন্ম হওয়া ভেরোনা মাত্র পাঁচ বছর বয়সে শুরু করেন জিমন্যাস্টিক্স প্রশিক্ষণ।

মাত্র ১২ বছর বয়সে জাতীয় স্তরে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ভেরোনা। ২০০০ সালে প্রথম আবির্ভাবেই জুনিয়র অল রাউন্ড চ্যাম্পিয়ন হন তিনি। পরের বছর সাফল্য এল আন্তর্জাতিক মঞ্চে। গ্রিসে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে তার নামের পাশে যোগ হয় পাঁচটি পদক।

এই সাফল্যের পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি ভেরোনাকে। ২০০১ সালে হন ডাচ অল অ্যারাউন্ড উইমেন্স চ্যাম্পিয়ন। ২০০২ সালে জিমন্যাস্টিক্স বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণপদক পেয়েছিলেন। সে বছর তিনি দেশের সেরা ক্রীড়াবিদ ঘোষিত হন।

টানা সাফল্যের পর ২০০৪ সালে ব্যর্থতার শুরু। অ্যাথেন্স অলিম্পিক্সের জন্য নির্বাচিত হতে পারলেন না। এই নিয়ে ব্যক্তিগত প্রশিক্ষক ফ্র্যাঙ্কের সঙ্গে মতবিরোধ হয়। কোচ পরিবর্তন করলেন ভেরোনা। তার নতুন কোচ হন বরিস ওর্লোভ।

নতুন কোচের প্রশিক্ষণে ফের সাফল্যে ফেরেন ভেরোনা। ২০০৭ সালে তিনি চতুর্থবারের জন্য জিমন্যাস্টিক্সে নেদারল্যান্ডসে অল রাউন্ড চ্যাম্পিয়ন হন। পরের বছর খেলা থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন তিনি।

অবসরের কারণ হিসেবে জানিয়েছিলেন, তিনি আর মোটিভেশন পাচ্ছেন না। এর পাশাপাশি তার ব্যক্তিগত জীবনের সমস্যা এবং জিমন্যাস্টিক্স ফেডারেশনের সঙ্গে মতবিরোধও অবসরের সিদ্ধান্তের জন্য দায়ী বলে শোনা যায়।

জিমন্যাস্টিক্স ছাড়ার পরেই ভেরোনার জীবনে আসে নাটকীয় পরিবর্তন। ২০১১ সালে প্রায় আড়াই মাসের কারাদণ্ড হয় ভেরোনার। অভিযোগ, তিনি এক দম্পতিকে ব্ল্যাকমেল করেছিলেন। তদন্তে উঠে আসে, ওই দম্পতি বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন। সেটিকে মূলধন করেই ভেরোনা ব্ল্যাকমেলিং করছিলেন বলে জানা যায়।

সম্প্রতি ভেরোনা নিজেই জানিয়েছেন, ২০১১ থেকেই তিনি পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করছেন। ভেরানোর অভিযোগ, জেল থেকে মুক্তির পরে পরিবারের লোক তার সঙ্গে সম্পর্ক রাখেননি। তাই অর্থ সংস্থানের জন্য এই পেশায় আসতে বাধ্য হয়েছিলেন।

তবে ভেরোনো এও জানিয়েছেন, তিনি আর পাঁচজন পর্নতারকার থেকে আলাদা। কাজের নিয়মকানুনও ঠিক করতেন নিজেই। তার দাবি, পর্ন ছবি যা করেছেন সেখানে হয় তিনি একা ছিলেন অথবা বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে শুটিং করেছেন।

এদিকে এ বছরই পর্ন ইন্ডাস্ট্রি থেকে বিদায় নেয়ার কথা জানিয়েছেন ভেরোনা। দুটি চুক্তি শেষ হওয়ার অপেক্ষায় আছেন। তবে ভেরোনা এ কথাও জানিয়েছেন, গত আট বছর ধরে তিনি এই কাজ উপভোগ করছেন। মনে হচ্ছে, বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে সুন্দর সময় কাটছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও তিনি যথেষ্ট জনপ্রিয়। তার ফেসবুক প্রোফাইল অনুরাগীদের শুভেচ্ছায় ভরা। সূত্র- আনন্দবাজার

ফিনল্যান্ডের সৈকতে কোটি কোটি ডিম!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাল্টিক সাগরের একেবারে উত্তরাংশে বোথনিয়া উপসাগর। এই উপসাগরই সুইডেনকে ফিনল্যান্ড থেকে আলাদা করেছে। আর এখানেই রয়েছে ফিনল্যান্ডের হাইলুয়তো দ্বীপ।

সম্প্রতি হাইলুয়তো দ্বীপের বিস্তীর্ণ অংশ ডিমের মতো দেখতে বরফের টুকরোতে ঢেকে গেছে। ওই এলাকার পার্শ্ববর্তী অংশে থাকা অনেক বাসিন্দা ডিমের মতো বরফের টুকরোর ছবি তুলেছেন। আবার কেউ কেউ নিজেদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও আপলোড করেছেন। সেই ছবিগুলো হয়েছে ভাইরাল।

টারজা টেরেন্টজেফ নামে এক ব্যক্তি জানান, আসাধারণ দৃশ্য। সারা বিচ ভরে রয়েছে ডিমের মতো বরফে। এ দৃশ্য আগে কখনো দেখিনি।

এদিকে বরফের বলগুলি ডিমের মতো দেখতে হল কেন? এ প্রসঙ্গে সিএনএন ওয়েদার জানিয়েছে, সমুদ্রের অশান্ত জল গুঁড়ো বরফের স্তরে এসে তীব্র বেগে আছড়ে পড়ার জন্যই বরফের টুকরোগুলির আকার ডিমের মতো হয়েছে।

বিরল প্রজাতির সাপ উদ্ধার, দাম ৬০ লাখ টাকা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বিরল প্রজাতির একটি সাপের নাম রেড স্যান্ড বোয়া। এর বেচাকানা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। তবুও আন্তর্জাতিক চোরাবাজারে বহুমূল্যে বিক্রি হয় এই সাপ। একটি সাপের দাম প্রায় ৬০ লাখ টাকা।

সম্প্রতি ভারতের মহারাষ্ট্রের নবী মুম্বাই থেকে এই প্রজাতির একটি সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। বিরল প্রজাতির ওই সাপটি বাজারে বিক্রি করার সময় উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, সম্প্রতি যাদব নামের এক ব্যক্তির কাছে থেকে এমন একটি সাপ পাওয়া গেছে। একটি বন্যপ্রাণী মার্কেটে এই দুষ্প্রাপ্য সাপটি বিক্রি করার চেষ্টা করছিল।

প্রসঙ্গত, রেড স্যান্ডবোয়া সাপের কোনো বিষ থাকে না। এগুলো দেখতে অন্যান্য সাপ থেকে বেশ আলাদা। এর মাথা ও লেজ দুটিই গোল। এরা নিজের গর্তে না থেকে ইঁদুরের গর্তে ঢুকে থাকে। এরা ছোট ছোট প্রাণী খেয়ে জীবন ধারণ করে। এই স্ত্রী সাপ একবারে ছয় বা তার অতিরিক্ত ছানার জন্ম দেয়। সূত্র -নিউজ এইটটিন বাংলা

ছেলের সঙ্গে মালাইকার ‘সেক্সি’ সেলফি, শুরু তুমুল সমালোচনা

অনলাইন ডেস্ক: বলিউডে হট মাদের তালিকায় যিনি অন্যতম, তিনি হলেন মালাইকা অরোরা। ছেলে আরহানের সঙ্গে মালাইকার সম্পর্কটা অবশ্য নেহাতই মা-ছেলের মতো নয়, বরং বন্ধুত্বপূর্ণ।
সম্প্রতি, মালাইকার ৪৬ বছরের জন্মদিনে হাজির হয়েছিলেন আরহান খান। জন্মদিনের কেক কেটে ছেলেকে খাইয়ে দিতেও দেখা যায় অভিনেত্রীকে।

এদিকে, নিজের শোবার ঘরে ছেলের সঙ্গে সেলফি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতে দেখা যায় মালাইকাকে। ছেলের সঙ্গে তোলা মালাইকার এই সেলফি নজরে পড়েছে কঙ্গনার দিদি রঙ্গোলি চান্দেলের। এই সেলফি নিয়ে টুইটারে নিজের মতামত জানাতে এক্কেবারেই ভোলেননি রঙ্গোলি।

বিষয়টি নিয়ে ইঙ্গিতে এক প্রকার বিদ্রুপই করেছেন রঙ্গোলি। ছবিটি রিটুইট করে রঙ্গোলি লিখেছেন, একেই হয়ত বলে আধুনিক মা। এই ক্যাপশানের সঙ্গে হাততালি দেয়ার ইমোজিও পোস্ট করেছেন রঙ্গোলি।

আবার অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবিটি নিয়ে সমালোচনাও করেছেন। অনেকেই আবার মালাইকাকে আক্রমন করে লিখেছেন, সন্তানের সামনে লজ্জা থাকা উচিৎ। এছাড়া আবার অনেকেই তাকে স্মার্ট মা বলেও উল্লেখ করেছে।