কুয়েত সরকারের পদত্যাগ


প্রকাশিত : November 14, 2019 ||

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তেল সমৃদ্ধ দেশ কুয়েতের বর্তমান সরকার। দেশটির ক্ষমতাসীন আমিরের কাছে এরইমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ জাবের আল-মুবারক আল-হামাদ আল-সাবাহ তার মন্ত্রিসভার পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন দেশটির এক সরকারি মুখপাত্র।
মঙ্গলবার কুয়েতের সংসদ দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ খালিদ আল-জাররাহ-আল সাবাহ’র বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবনার ভিত্তিতে ভোট গ্রহণের দাবি জানায়। এ ঘটনার জেরেই পদত্যাগ পত্র জমা দেন প্রধানমন্ত্রী।

কুয়েতে প্রায়ই মন্ত্রিপরিষদের পদত্যাগের এমন ঘটনা ঘটে। যখন নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা কোনো উর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনাস্থার প্রশ্ন তোলে বা ভোটগ্রহণ করতে চায় তখন এমনটা হয়।

তবে পদত্যাগ চূড়ান্ত করার জন্য আমিরকে আগে সেটি গ্রহণ করতে হবে। এরপর তিনি নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের অনুরোধ করবেন।

ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে আইনজীবীরা শেখ খালিদকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। সেখানে তিনি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রত্যাখান করে।

গত শুক্রবারে দেশটির গণপূর্তমন্ত্রী পদত্যাগ করেন। ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে মরুভূমির দেশটিতে বন্যায় ক্ষয়-ক্ষতির কারণে সংসদে তার কঠোর সমালোচনা হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র ও ওপেকের অন্যতম সদস্য দেশ কুয়েত। ছয় দেশীয় উপসাগরীয় পরিষদে সবচেয়ে বেশি উন্মুক্ত রাজনৈতিক ব্যবস্থা কুয়েতের। এর সংসদীয় ব্যবস্থা আইন প্রণয়ন ও মন্ত্রীদের প্রশ্ন করার ক্ষমতা রাখে।

কুয়েতের সরকারব্যবস্থায় প্রধানমন্ত্রী আমির দ্বারা নির্বাচিত হয়, রাষ্ট্রীয় বিষয়ে যার বক্তব্যই চূড়ান্ত। এখানে উচ্চ পর্যায়ের পদগুলো শাসক পরিবারের সদস্যদের দখলে থাকে।

মন্ত্রিপরিষদ ও সংসদের মধ্যকার বিভেদের কারণে ঘন ঘন সংসদ বদল করা হয়।