ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময়কালে জেলা প্রশাসক: গুজব ছড়িয়ে মূল্য বৃদ্ধির চেষ্টা করলে কঠিন শাস্তি পেতে হবে (ভিডিও)


প্রকাশিত : November 20, 2019 ||

সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এসএম মোস্তফা কামাল সকলকে গুজবের ব্যাপারে সজাগ থাকার আহবান জানিয়ে বলেছেন, একটি ষড়যন্ত্রকারী চক্র দেশে অস্থিতিশীলতা তৈরী করার জন্য পরিকল্পিত উপায়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এতে আতংকিত না হয়ে গুজব ছড়িয়ে মূল্য বৃদ্ধির অপচেষ্টা সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধ করতে হবে।

বুধবার (২০ নভেম্বর) সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুর বড় বাজারে ব্যবসায়ীদের সাথে চাউল, পেঁয়াজ ও লবণসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির গুজব প্রতিরোধে করণীয় বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় জেলা প্রশাসক বলেন, দেশে ৬ লক্ষ মে.টন লবণ মজুদ রয়েছে। প্রতিমাসে সারা দেশের চাহিদা ১ লক্ষ মে.টন। তাই সংকটের কোন কারণ নেই।

তিনি বলেন. জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গোটা জেলার হাট-বাজার সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

এ কার্যক্রমে সাতক্ষীরা চেম্বার অব কমার্স এবং বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ ও সদস্যবৃন্দকে তিনি সহযোগিতার আহবান জানান।

সভায় তিনি আরও বলেন, এতো সতর্ক করার পরেও যদি কেউ গুজব ছড়িয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির চেষ্টা করে তাহলে তাকে কঠিন শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে গুজব ছড়িয়ে লবণের বাজার দর বৃদ্ধির অপচেষ্টা রোধকল্পে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে ২১ নভেম্বর প্রত্যেক উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ জেলাব্যাপী মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছে। এর মাধ্যমে সমগ্র জেলায় ২৭ জন ব্যক্তি ও ১টি প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৫ জনের ১ মাস করে কারাদন্ড, তালা উপজেলায় ১ জনের ১০ দিনের কারাদন্ড, দেবহাটায় ৫ জনকে ৩দিন করে কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

গুজব প্রতিরোধে প্রয়োজনে জেলা প্রশাসন আরও কঠোর হবে, উল্লেখ করেন তিনি।

সভায় সাতক্ষীরা চাউল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক বলেন, সাতক্ষীরায় পর্যাপ্ত চাউল মজুদ আছে। চালের কোন সংকট নেই।

চাউল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি বলেন, আগে ১০০ বস্তা ধান এক দিনে শুকানো যেত। এখন আবহাওয়া জনিত কারনে ৩/৪ দিন সময় লাগছে। ফলে নতুন চাউল বাজারে আসতে একটু বিলম্ব হচ্ছে। কিন্তু এই কারণে বৃহত্তর মূল্য বৃদ্ধির কোন সুযোগ নেই।

বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আশ্বস্ত করে বলেন, বাজারে পর্যাপ্ত পরিমাণে চাউল ও লবণ মজুদ আছে। কেউ যেন সমিতির অনুমোদন ছাড়া বেশি দামে পণ্য বিক্রি না করে।

সভায় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু গুজব প্রতিরোধে জেলা প্রশাসনের তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, জেলাব্যাপী যেভাবে গুজব ছড়িয়ে পড়ছিল, তা ভয়ংকর ক্ষতির কারণ হতো। কিন্তু জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল অত্যন্ত বিচক্ষণতার সাথে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করায় ষড়যন্ত্রকারীরা পরাস্ত হয়েছে।

তিনি সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীদের প্রতি গুজবে কান না দিয়ে সতর্ক থাকার আহবান জানান।

সভায় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাশীষ চৌধুরী, সাতক্ষীরা চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক জিএম মনিরুল ইসলাম মিনিসহ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।