বেনাপোলে বিনা টাকায় ঘুষমুক্ত পরিবেশে কাষ্টমসের সিপাহি পদে পরীক্ষা দিল অর্ধলাখ শিক্ষার্থী

এম এ রহিম, বেনাপোল (যশোর): এই প্রথম বিনা টাকায় ঘুষ মুক্ত উৎসব মুখর পরিবেশে বাংলাদেশ কাষ্টমসের সিপাহি পদে শারিরিক ফিটনেস পরীক্ষা অনুষ্টিত হচ্ছে। হরতালের মধ্যেও গাইবান্ধা খুলনা বরিশাল রাজশাহি বগুড়া রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পরীক্ষার্থীরা এসেছে বেনাপোলে। বেনাপোল কাষ্টম হাউজে অর্ধ লাখ পরীক্ষার্থী ও অবিভাবকদের উপচে ভীড়ে হিমশিম খাচ্ছে প্রশাসন। কাষ্টম কর্তৃপক্ষ ও আনসার সদস্য ও পোর্ট থানা পুলিশ সকাল থেকেই কাষ্টম গেটে সারিবদ্ধভাবে পরীক্ষার্থীদর প্রবেশের চেষ্টা চালান। তবে মাইকিং ও নোটিশ বোর্ড স্বল্পতার কারনে অনেক পড়ের বে কায়দায়।
গত ২বছর আগে কাষ্টম সিপাহি পদে ৫৬ জন নিয়োগে আবেদন আহব্বান করে কাষ্টম হাউজ বেনাপোল। ২৭ হাজার ৫০০ আবেদন জমা পড়ে। এর মধ্যে বাছাইকৃত ১৩ হাজার পরীক্ষার্থী শারিরিক ফিটনেসে অংশগ্রহণ করবে। শুক্র ও শনিবার সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে পরীক্ষা চলবে সন্ধ্যা পর্যন্ত। ২৯ নভেম্বর যশোরে অনুষ্টিত হবে লিখিত পরীক্ষা।
বেনাপোল কাষ্টমসের সহকারি কমিশনার উত্তম চাকমা জানান, এ উপলক্ষে কাষ্টম ডিসি নিয়ামুল ইসলামের নেতৃত্বে বেনাপোল কাষ্টম হ্উাজ অভ্যান্তরে ব্যাপক নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। খুশি পরীক্ষার্থীরা। সব ধরনের সহযোগিতা দিচ্ছেন তারা। এ পরীক্ষায় কোন ধরনের অনৈতিক লেনদেরে সুযোগ নেই বলে জানান তিনি।
দেশেন বিভিন্ন স্থাœন থেকে আসা পরীক্ষার্থীরা জানান, কোন যোগাযোগ না লেনদেন ছাড়ায় সন্দর পরিবেশে পরীক্ষা দিচ্ছেন, টাকা ছাড়াই নিয়োগ পাবেন এমন আশা করেন তারা।
কর্তৃপক্ষের দায়িত্বহীনতার কারনে বাহিরের পরিবেশ কষ্টদায়ক নাজেহাল হচ্ছেন তারা। সড়কের উপর দাড়িয়ে থাকা হাজার হাজার পরীক্ষার্থীরা করছেন বিস্তর অভিযোগ। অনেকে নিয়ম ভেঙ্গে ভিতরে যাচ্ছেন আগে। নোটিশ বোর্ডে নেই নির্দেশনা। অধিক নোটিশ বোর্ড স্থাপনের সুযোগ থাকলে হয়রানি কমতো বলে জানান ভুক্তভোগী পরীক্ষার্থীরা। ঘুষ ছাড়ায় বিনা টাকায় চাকরী পাবেন সন্তানেরা। নিয়ম মেনেই হচ্ছে পরীক্ষা। সরকারকে ধন্যবাদ জানান অবিভাবকেরা।