ভিয়েতনামে আটক দেশ ছেড়ে পালানো ১১ উত্তর কোরীয় নাগরিক


প্রকাশিত : December 3, 2019 ||

অনলাইন ডেস্ক: দক্ষিণ কোরিয়ায় আশ্রয়ের উদ্দেশ্য নিজ দেশ ছেড়ে পালানো এগারো উত্তর কোরীয় নাগরিককে ভিয়েতনামে আটক করা হয়েছে। গত ২৩ নভেম্বর থেকে তারা দেশটিতে আটক রয়েছে বলে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার মানবাধিকার কর্মীরা।

সোমবার তাদের প্রকাশিত এক বিবৃতির বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স। তারা জানায়, আটককৃতরা প্রত্যাবাসন থেকে বাঁচতে সাহায্য প্রার্থনা করেছে।

উত্তর কোরিয়ার সিউল ভিত্তিক বিচারক এক বিবৃতিতে বলেন, চীন পাড়ি দেয়ার দু’দিন পরে উত্তর ভিয়েতনামের সীমান্তরক্ষী বাহিনীরা আট নারী ও তিন পুরুষকে আটক করে। বর্তমানে তাদের ল্যাং সন শহরে আটকে রাখা হয়েছে।

উত্তর কোরীয় শরণার্থী দলকে সমর্থনকারী দলের প্রধান পিটার জং বলেন, হানোই’য়ে অবস্থিত দক্ষিণ কোরিয়ার দূতাবাসের কাছে শরণার্থীরা সাহায্যের আবেদন করেছিল। কিন্তু শুক্রবারের পর তারা তাকে কিছুই জানায়নি।

জং আরো বলেন, সিউল দূতাবাসের এই নীরবতার কারণে তিনি আশঙ্কা করছেন যে, কোনো আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া না দিলে শরণার্থীদের জোরপূর্বক দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া হতে পারে।

তিনি আরো বলেন, শরনার্থীদের মধ্যে থেকে বেশ কয়েকজন প্রতিবাদ জানানো ও জ্ঞান হারানোর পর বৃহস্পতিবার ভিয়েতনাম কর্তৃপক্ষ তাদের পক্ষ থেকে শরণার্থীদের নির্বাসিত করার প্রচেষ্টা বন্ধ করে দেয়।

ভিয়েতনাম পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় এ ব্যাপারে তাৎক্ষনিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি।

দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা বিষয়টি সম্পর্কে জানতো ও এ ব্যাপারে তারা ভিয়েতনাম সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করছিলো। তারা শরণার্থীদের উত্তর কোরিয়ায় ফেরত পাঠানো ঠেকাতে চেষ্টা করছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার একীকরণ মন্ত্রণালয় যা উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে দেশটির সম্পর্কের বিষয়গুলো পরিচালনা করে তাদের দেয়া তথ্যমতে, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রায় ৭৭১ উত্তর কোরীয় শরণার্থী দক্ষিণ কোরিয়া’তে প্রবেশ করেছে।

এছাড়া বর্তমানে প্রায় ৩৩ হাজার উত্তর কোরীয় শরণার্থী দক্ষিণ কোরিয়াতে বসবাস করছে।